বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির জন্য সুইফটের প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করা হয়েছে বলে ধারণা করছে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা প্রতিষ্ঠান বিএই সিস্টেমস। ওই প্রতিষ্ঠানের বরাত দিয়ে সোমবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে আরও জানানো হয়েছে, গ্রাহকের ব্যবহৃত সফটওয়্যারে ম্যালওয়্যার আক্রমণের বিষয়ে জানতো ৩ হাজার অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানের মালিকানায় থাকা সমবায়ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সুইফট।

সুইফটের বরাত দিয়ে ওই প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে,  গ্রাহকের সফটওয়্যারকে টার্গেট করে ম্যালওয়্যার বসানোর বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। সুইফটের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভেঙ্গে দিয়ে রিজার্ভ চুরি করেছিল হ্যাকাররা।

সুইফট মুখপাত্র নাতাশা দেতেরান জানান, ওই ম্যালওয়্যারকে অকার্যকর করতে আজ সোমবারই একটি সফটওয়্যার আপডেট দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সেইসঙ্গে সুইফটে সংযুক্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাদের সাইবার নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেখার বিষয়ে সতর্ক করা হবে।

তিনি জানান, নতুন এই সফটওয়্যার নির্বাচনের ক্ষেত্রে সাইবার-নিরাপত্তা আরও কঠোর করার বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। হ্যাকারদের আক্রমণ চিহ্নিত করার জন্য আর্থিক ব্যবস্থাপনার একটি অপরিহার্য উপাদান হয়ে উঠবে এটি। এর মাধ্যমে সুইফট গ্রাহকদের সফটওয়্যারের দুর্বলতাগুলোও সংশোধন করা সম্ভব হবে।

এতে নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে গ্রাহকদের সহায়তা করার পাশাপাশি তাদের ডাটাবেসের রেকর্ডে অসঙ্গতি থাকলে তাও ধরা পড়বে বলে আশা প্রকাশ করেন নাতাশা দেতেরান।

আন্তর্জাতিক লেনদেনের ক্ষেত্রে বিশ্বের ১১ হাজার ব্যাংককে যুক্ত করেছে সোসাইটি ফর ওয়ার্ল্ডওয়াইড ইন্টারব্যাংক ফাইন্যান্সিয়াল টেলিকমিউনিকেশনের (সুইফট)। দুটি দেশের মধ্যে অর্থ স্থানান্তরের জন্য কেন্দ্রীয় ও বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে সুইফটের পৃথক কোড রয়েছে। সিস্টেম ব্যবহারের জন্য গোপান নাম্বারও (পিন) দেওয়া হয়। সুইফটের কোড ও পিন ব্যবহার করে এক দেশ থেকে অন্য দেশে লেনদেন করে ব্যাংকগুলো।

প্রসঙ্গত, গত ৫ ফেব্রুয়ারি সুইফট মেসেজ পাঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউ ইয়র্কে থাকা বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ফিলিপাইন ও শ্রীলঙ্কায় ১০ কোটি ডলার সরানো হয়। এর মধ্যে আরসিবিসি ব্যাংকের মাধ্যমে আট কোটি ১০ লাখ ডলার ফিলিপাইনে প্রবেশ করে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here