পাওলো দিবালাকে পাওয়া তবে সম্ভব! জুভেন্টাসের জেনারেল ম্যানেজার গুইসেপ্পে মোরাত্তা বলছেন সেরকমটাই। চাইলেই ‘ক্ষুদে মেসি’কে দলে টানতে পারে বার্সেলোনা। সেক্ষেত্রে শুধু একটা কাজই করতে হবে কাতালান কর্মকর্তাদের! বুঝিয়ে-শুনিয়ে, লাভ-ক্ষতির হিসাবটা ভালো মত মাথায় ঢুকিয়ে দিবালাকে রাজি করাতে হবে।

নেইমার পিএসজিতে চলে যাওয়ার পর থেকেই ব্রাজিলিয়ান তারকার বিকল্প হিসেবে দিবালা এবং ফিলিপে কৌতিনহোর পেছনে ছুটছে বার্সা। কিন্তু অনেক ঘাম ঝরানোর পরও কাউকেই কব্জা করতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত ১৫০ মিলিয়নে ফরাসি ফরোয়ার্ড ডেম্বেলেকে পেলেও চোটের কারণে চার মাসের জন্য হারাতে হয়েছে তাকেও।

গ্রীষ্মকালীন দলবদলে না পেলেও আসছে শীতকালীন দলবদল মৌসুমে দিবালাকে পেতে কোমরবেঁধে নামার প্রস্তুতি সারছেন বার্সার কর্মকর্তারা। সেদিকেই ইঙ্গিত করে মোরাত্তার দাবি, একবার যদি ক্যাম্প ন্যুতে যেতে মনস্থির করে ফেলেন দিবালা, তবে তাকে আটকানোর ক্ষমতা তাদের (জুভেন্টাস) নেই।

‘কোনও খেলোয়াড় একবার যদি ক্লাব ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন, তবে তাকে আটকানোর ক্ষমতা কারও নেই। দিবালাও এর বাইরে নয়।’ সংবাদ মাধ্যম মিডিয়াসেট প্রিমিয়ামকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন মোরাত্তা।

১১০ মিলিয়ন ইউরো দাম হাঁকিয়েও বার্সার দিবালাকে না পাওয়ার পেছনে কারণ হিসেবে ভাবা হয় জুভেন্টাসের ১৬০ মিলিয়ন ইউরোর বাই আউট ক্লজকে। তবে সেটা মোরাত্তা অস্বীকার করে বলেছেন, তাদের সেরা খেলোয়াড়টির জন্য এমন কোনও বাই আউট তারা বেঁধে দেননি। দিবালা চাননি বলেই কাতালান ক্লাবটি তাকে পায়নি।

অর্থাৎ, ‘আগামী মেসি’কে পেতে হলে ক্লাব নয়, দিবালাই স্বয়ং প্রধান বাঁধা। সিনিয়র মেসির সমান দুই হ্যাটট্রিকে আট গোল করা তারকাকে পেতে হলে দিবালাকেই রাজি করানো ছাড়া যে আর কোন বিকল্প খোলা নেই, সেদিকেই ইঙ্গিত মোরাত্তার।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here