ছোটপর্দার অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধনের সবকিছুই যেন তার মেয়ে সায়রাকে ঘিরে। শত ব্যস্ততার মাঝেও মা হিসাবে নিজের দায়িত্ব ঠিকই পালন করছেন তিনি। একমাত্র মেয়ে সায়রার অগ্রাধিকার বাঁধনের কাছে সবসময়ই আগে। তবে মা-মেয়ের এই মধুর সম্পর্ক এখন গড়িয়েছে আদালতে। বাঁধন তার একমাত্র মেয়ে সায়রাকে কাছে রাখার জন্য পারিবারিক আদালতে মামলা করেছেন। গত ৩ আগস্ট তার পক্ষ থেকে এই মামলা দায়ের করা হয়।

এ বিষয়ে বাঁধন বলেন, ‘আমার মেয়ে আমার সবকিছু। মিডিয়ায় সবারই জানা আমি আমার মেয়েকে কিভাবে বড় করছি। সায়রা যেন ভালো মানুষ হতে পারে তার জন্য আমি কোনকিছুর ত্রুটি রাখছি না। ভালোভাবে তাকে গড়ে তোলার চেষ্টা করছি। অথচ তাকে পাওয়ার জন্য এখন আমাকে আদালতের শরণাপন্ন হতে হলো।’

লাক্স তারকা বাঁধনের দাবি, তার প্রাক্তন স্বামী মাশরুর সিদ্দিকী সনেট মেয়ে সায়রাকে তার কাছ থেকে দূরে সরিয়ে নিতে চাইছেন। তিনি বলেন, সায়রার বাবা তাকে কানাডা নিয়ে যাওয়ার কথা বলে। আমি বিষয়টিতে বাঁধা দিতে গেলে সনেট বলে, প্রয়োজনে জোর করেই সে মেয়েকে কানাডায় পাঠাবে। কিন্তু আমি চাই না আমার একমাত্র সন্তান দেশের বাইরে থাকুক। ওর জন্য আমি অনেক সংগ্রাম করেছি। ওকে ছাড়া আমি থাকতে পারবো না। তাই সায়রাকে আমার কাছে যেন রাখতে পারি সেজন্য মা হিসেবে আমার অধিকার পেতে মামলা করেছি।

নিজের বর্তমান অবস্থান তুলে ধরে বাঁধন বললেন, ‘একদিকে মেয়েকে সামলাচ্ছি, মামলা লড়ছি। অন্যদিকে কাজ করার চেষ্টা চালাচ্ছি। দুঃসময়ে পাশে থাকার জন্য কিছু মানুষের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমার বাবা-মা, দুই ভাই, মেয়ের স্কুলের শিক্ষক, অভিভাবকরা, আমার সহকর্মী, পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট সবাই আমাকে মানসিক সমর্থন দিয়েছেন। আসলে এমন পরিস্থিতে একটা মেয়ে কতটা অসহায় হয়ে পড়ে তা বলে বোঝানোর মতো নয়।’

২০১০ সালে মাত্র ৩ মাসের পরিচয়ে সনেটকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন বাঁধন। সুখে-শান্তিতে সংসার করছিলেন তিনি। কিন্তু প্রত্যাশার পূর্ণতা মেলেনি। তাই বাধ্য হয়েই ২০১৪ সালের আগস্ট মাসে তারা বিচ্ছেদের জন্য আবেদন করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here