মিয়ানমারে বর্বর নির্যাতনের শিকার হয়ে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার ও বাংলাদেশের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সোমবার ঢাকার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বাংলাদেশ-মিয়ানমারের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী জানান, খুব শিগগির মিয়ানমার সফরে যাবেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়া সংক্রান্ত চুক্তি প্রস্তাব করার পর তারা ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়ে অঙ্গিকার করেছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, খুব শিগগিরই তাদের ফিরিয়ে নিবে তারা। এই প্রক্রিয়ায় জাতিসংঘকে ইনভল্ব করার কোন সুযোগ নেই। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়া থেকে শুরু করে সে দেশে যাওয়া পর্যন্ত সবকিছু করবে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ। তবে মিয়ানমার পূর্বের ন্যায় এই চুক্তি থেকে সরে আসবে কিনা সে বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি মন্ত্রী।

বৈঠকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অাবুল হাসান মাহমুদ অালী ও মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চির দপ্তরের মন্ত্রী টিন্ট সোয়ে অংশ নেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অাসাদুজ্জামান খান ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার অালম বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক এবং বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল অাবুল হোসেনসহ সিনিয়র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

গত রাতে সংক্ষিপ্ত সফরে ঢাকায় আসেন মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চির দপ্তরের মন্ত্রী টিন্ট সোয়ে। ২৫ অাগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সহিংসতা শুরুর পর এটিই মিয়ানমারের কোন মন্ত্রীর বাংলাদেশে প্রথম সফর।

তবে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনের কোন কর্মসূচি মিয়ানমারের মন্ত্রীর এই সফরে নেই। বৈঠক শেষেই তার দেশে ফিরে যাওয়ার কথা রয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here