গণমাধ্যমে প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে তাকে ‘ফকিন্নির পুত’ বলায় অন্তর শোবিজের প্রধান স্বপন চৌধুরীর উদ্দেশ্যে ফেইসবুকে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন অভিনেতা ও ফেইসবুক সেলিব্রেটি সালমান মুক্তাদীর।

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ নিয়ে সমালোচনার মুখে থাকা স্বপন চৌধুরী রোববার গণমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকারে সালমান মুক্তাদীরকে ‘ফকিন্নির পুত’ বলেন।

সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ইউটিউবে দেখলাম, সালমান মুক্তাদীর নামের একটা ছেলে, সে বলছে ‘কপি-পেস্ট’-এর কারণে এসব হচ্ছে। আমি বলবো, ‘কপি-পেস্ট’ করার কারণে এমনটা হয়নি, এটা স্রেফ একটা ভুল। এই সালমান মুক্তাদীর কয়দিন হলো ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছে?  আমি এই ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করছি আজ ৩২ বছর হলো। পঁচিশ বছর ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টে, এর আগে গান-বাজনা করতাম। কোথাকার কোন ফকিন্নির পুত, আমাকে নিয়ে, আমার প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে যা খুশি তাই বললেই হলো?’

এর জবাবে মঙ্গলবার দুপুরে নিজের অফিশিয়াল ফেইসবুকে দীর্ঘ এক পোস্ট করেন সালমান।

সেখানে তিনি লিখেছেন, এটা স্বপন চৌধুরীর উদ্দেশ্যে একটি খোলা চিঠি। ৩২ বছর কাজ করার পর বিখ্যাত ব্যক্তিত্বে পরিণত হওয়ার লাভটা কী, যদি আপনি একজন তরুণের সঙ্গেই ভদ্রতা বজায় রেখে কথা না বলতে পারেন? আমি কি আপনার বিরুদ্ধে কোনো গালি দিয়েছি? যে ভুল আপনি করেছেন, সেটা ঠিক না করে এবং ক্ষমা না চেয়ে আপনি ১৬ বছরের প্রেমিকাদের মতো আচরণ করছেন।

সালমান আরো লিখেছেন, ওইদিনের আগ পর্যন্ত আপনার নামও আমি জানতাম না। আমি আপনার শত্রু নই। আপনার বক্তব্যই প্রমাণ করে কতোটা ভঙ্গুর আপনি। মুখ খারাপ আমিও করতে পারি। ‘ফইন্নির পুত’-এর এগেইন্সটে এমন এমন কামব্যাক মারতাম যে মিডিয়ার মানুষ হাসতে হাসতে মাটিতে গড়াতো।

ঘটনা রোববারের, কিন্তু উত্তর দিতে একদিন সময় নিলেন কেন, এটা জানতে চাইলে মুক্তাদীর বলেন, আমি আসলে অনেক ব্যস্ত থাকি। গতকাল সারাদিনই ব্যস্ত ছিলাম। ফোনেও চার্জ ছিলো না। আজ সকালে উঠে সময় নিয়ে পুরোটা লিখলাম। সবাই জবাব পাবে। কিন্তু আমার সময় অনুযায়ী।

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা নিয়ে বিতর্কের পুরো দায়ভার স্বপন চৌধুরীর উপর চাপিয়ে তিনি আরো বলেন, দেখেন, এটা সিম্পল একটা হিসাব। যেটা হয়েছে, পুরো জিনিসটা নিয়ে একটা অ্যাপলজি লেটার প্রকাশ করলেই হয়ে যেত। তাহলে যারা প্রতিযোগী, যাদেরকে ন্যাশনাল টিভিতে সবার সামনে এভাবে অপমান করা হলো- তারাও ব্যাপারটা বুঝতো এবং যে যার মতো কাজ করতো। কিন্তু তিনি তো সেটা করেনইনি, উল্টো এভাবে মানুষকে গালি দিচ্ছেন। এটাই তো প্রমাণ করে এখানে তার দোষ কতখানি।

 

স্বপন চৌধুরীর কাছ থেকে ক্ষমাপ্রার্থনা দাবি করেন কিনা- এই প্রশ্নের জবাবে সালমান বলেন, আমাকে হাজার হাজার মানুষ গালি দেয়। আমাকে গালি দিয়ে উনি নিজে অপমানিত হয়েছেন। তবে আমি এটা নিয়ে পড়ে থাকতে চাইনা। আমাকে আরো অনেক দূর যেতে হবে, তাই উনাকে নিয়ে আর পড়ে থাকতে চাচ্ছি না।

 

এব্যাপারে কোনো আইনি পদক্ষেপও নিচ্ছেন না জানিয়ে সালমান বলেন প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের পরদিন অনেক প্রতিযোগীই তার কাছে পরামর্শ চেয়েছিলেন।

 

অনেকেই আমাকে ফোন করে জানতে চেয়েছিলেন এরপর কি করবেন। আমি তাদেরকে কিছু সাজেশন দিয়েছি, এব্যাপারে আইনত কী করা যায়- সেটা নিয়ে। সেই সাজেশন অনুযায়ী ওরা হয়তো কিছু একটা করবে, কিন্তু পার্সোনালি আমি এটার সাথে ইনভল্ভ নই।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here