শান্তিতে নোবেল বিজীয় হিসেবে ইন্টারন্যাশনাল ক্যাম্পেইন টু অ্যাবোলিশ নিউক্লিয়ার ওয়েপন্স (আইকান) নামে একটি প্রতিষ্ঠান-এর নাম ঘোষণা করা হয়েছে। পরমাণু নিরস্ত্রীকরণে ভূমিকার জন্য প্রতিষ্ঠানটিকে এ পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়। ইন্টারন্যাশনাল ক্যাম্পেইন টু অ্যাবোলিশ নিউক্লিয়ার ওয়েপন্স (আইকান) নামের এই প্রতিষ্ঠানটি দীর্ঘদিন ধরে পরমাণু শক্তি হ্রাসকরণে কাজ করে আসছে। বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় অনস্বীকার্য অবদানের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানজনক ও মূল্যবান নোবেল শান্তি পুরস্কার পেয়েছে সংস্থাটি।

আজ শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টার দিকে নরওয়ের রাজধানী অসলোতে শান্তিতে পুরস্কার মনোনয়ন কর্তৃপক্ষ নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটি বিজয়ী হিসেবে সংস্থাটির নাম ঘোষণা করে।

এবার নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য ৩১৮ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। মনোনয়ন প্রাপ্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের তালিকায় নাম ছিল- ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস, জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মেরকেল, জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর), আমেরিকান সিভিল লিবার্টিস ইউনিয়ন, গাম্বিয়ায় শান্তি স্থাপনে ভূমিকা পালনকারী আঞ্চলিক জোট ইকোনমিক কমিউনিটি অব ওয়েস্ট আফ্রিকান স্টেটস (ইকোওয়াস), সিরিয়ার স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা হোয়াইট হেলমেটস এবং এর নেতা রিদ আল সালেহ, ইরানের পরমাণু চুক্তির মধ্যস্থতাকারী ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক প্রধান ফেদরিকা মোগেরিনি ও ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফের।

গত ৩ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে এবারের নোবেল পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা। এরই মধ্যে চিকিৎসা, পদার্থ, রসায়ন ও সাহিত্য নোবেল পুরস্কার ঘোষণা করেছে নোবেল কমিটি। ৯ অক্টোবর অর্থনীতিতে পুরস্কার বিজয়ীর নাম ঘোষণা রয়্যাল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস। গত বছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট  হুয়ান মানুয়েল সান্তোস। স্বদেশে গৃহযুদ্ধের অবসান ঘটানোর প্রচেষ্টা ও ফার্ক বিদ্রোহীদের সঙ্গে শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরের জন্য তাকে সেই পুরস্কার দেওয়া হয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here