সৌদি আরবের রাজার রাশিয়া যাত্রার শিরোনাম হতে পারত এক এবং একমাত্র দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক চুক্তি। কিন্তু সে সব ছেড়ে শিরোনামে এল রাজার সোনার সিঁড়ি কাহিনী। দেড় হাজার লোকজন নিয়ে নিজস্ব বিমানে করে রাশিয়ায় এলেন তিনি। চারদিনের রাশিয়া সফরে বিমান থেকে নামার সময় দেখা গেল তাঁর পা স্পর্শ করছে সোনার চলন্ত সিঁড়িতে।

সোনার সিঁড়িতে বিমান থেকে নামলেন সৌদি আরবের রাজা সলমন বিন আব্দুল আজিজ। ৮১ বছর বয়সে এমনই রেওয়াজি মেজাজ তাঁর। চলমান সোনার সিঁড়িতে কিছু যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। তখন বাকি অর্ধেক পথটা হেঁটে যেতে হয় রাজামশাইকে। তারপর রাজকীয় বিলাসবহুল গাড়িতে রাশিয়ান পুলিসের ঘেরাটোপে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের কাছে। কিন্তু ততক্ষনে রাশিয়া সাক্ষী দেখে নিয়েছে রাজার রাজকীয় মেজাজ।

সোনার সিঁড়ি ছাড়া এই সফরে ৮০০ কেজি খাবার সঙ্গে নিয়ে এসেছেন রাজা। যা নিজস্ব রাঁধুনি দিয়ে রান্না করা হয়েছে। রয়েছে সৌদির কফিও। নিজস্ব আসবাবপত্রও সঙ্গে বয়ে এনেছেন রাজা সলমন। সেগুলি রাখার জন্য এবং চারদিন থাকার জন্য দুটি বিলাসবহুল হোটেল ভাড়া নেওয়া হয়েছে। যার বাইরে স্বাগত জানাতে লাল পোশাকে দাঁড়িয়ে আছে দ্বাররক্ষী। চলতি মাসের ৮ তারিখ পর্যন্ত এই দৃশ্যের সাক্ষী থাকবে গোটা রাশিয়া।

আর পড়ে থাকা খবর , রাশিয়া সফরের সময় দুই দেশের মধ্যে সামরিক অস্ত্রের কেনাবেচা নিয়ে চুক্তি হয়েছে। সৌদি আরবের কাছ থেকে তেলের সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। কথা হয়েছে রিয়াদ–মস্কো বিমান চলাচল নিয়ে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here