সাতক্ষীরার পদ্মশাকরা সীমান্ত থেকে ১৯ রোহিঙ্গা সদস্যকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ(বিজিবি)। তাদের মধ্যে ১০টি শিশু, ছয় নারী ও তিন পুরুষ রয়েছেন।

বুধবার ভোরে পদ্মশাকরা সীমান্ত এলাকায় পৌঁছামাত্র ওই ১৯ জনকে আটক করা হয়।

উদ্ধারকৃতরা হলেন মরিয়ম বেগম, আসমা খাতুন, রাশিদা খাতুন, সুমাইয়া বেগম, গুলশান আরা খাতুন, জাইনুল কেগম, মো. আলাউদ্দিন, আজি রহমান ও এনায়েত আলি। বাকি ১০  শিশুর বয়স সর্বোচ্চ ছয় বছর।

বিজিবির পদ্মশাকরা তল্লাশিচৌকির (বিওপি) কমান্ডার সুবেদার মোশাররফ হোসেন জানান, ওই রোহিঙ্গারা ভারত থেকে দেশটির সীমান্তরক্ষাকারী বাহিনী বিএসএফের সহায়তায় বাংলাদেশে এসেছেন। এর আগে ২০১২ ও ২০১৪ সালে দু’দফায় তারা মিয়ানমার থেকে ভারতের দিল্লিতে যান। এর পর থেকে সেখানেই বসবাস করে আসছিল। কিন্তু সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকার রোহিঙ্গাদের আশ্রয় এবং খাদ্য, বস্ত্র ও চিকিৎসা দিচ্ছে বলে খবর পেয়ে তারা দিল্লি থেকে বাংলাদেশে চলে এসেছেন। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এর আগে গত ২২ সেপ্টেম্বর সাতক্ষীরার কলারোয়া বাসস্ট্যান্ড থেকে ১৩ জন এবং ৩ অক্টোবর কলারোয়ার হিজলদী সীমান্ত থেকে আরো সাত রোহিঙ্গাকে আটক করেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

সাতক্ষীরা সদর থানার এসআই শরিফ এনামুল হক জানান, আটকরা বেশ ক্লান্ত। তাদের খাদ্য ও চিকিৎসা সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here