রাশিয়া বলেছে, সিরিয়ায় চালানো রাসায়নিক হামলার জন্য দেশটির সরকারকে দায়ী করার প্রচেষ্টার তীব্র বিরোধিতা করবে মস্কো। রাশিয়ার সোচি শহরে সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়ালিদ আল-মুয়াল্লেমের সঙ্গে এক বৈঠকে এ মন্তব্য করেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ।

তিনি বলেন, “আমরা রাসায়নিক অস্ত্র সংক্রান্ত দলিলকে রাজনীতিকরণের তীব্র বিরোধিতা করব। সেইসঙ্গে সিরিয়ায় এ পর্যন্ত চালানো রাসায়নিক হামলার জন্য কোনো পেশাদার তদন্ত ছাড়াই দামেস্ককে দায়ী করতেও দেব না।”

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের পাশাপাশি মানবাধিকার পরিষদেও সিরিয়ার চলমান পরিস্থিতিকে রাজনীতিকরণের চেষ্টা চলছে বলে উল্লেখ করেন ল্যাভরভ। তিনি সিরিয়ার ব্যাপারে পক্ষপাতদুষ্ট নীতি গ্রহণের ব্যাপারেও পাশ্চাত্যকে সতর্ক করে দেন।

চলতি বছরের ৪ এপ্রিল সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় ইদলিব প্রদেশের খান শেইখুন শহরে রাসায়নিক হামলায় অর্ধ-শতাধিক ব্যক্তি নিহত হয়। আমেরিকা ও তার মিত্র দেশগুলো কোনো তদন্ত ছাড়াই তাৎক্ষণিকভাবে ওই হামলার জন্য সিরিয়া সরকারকে দায়ী করে। অন্যদিকে সিরিয়ার সরকার জানায়, দেশটি কখনো কোথাও রাসায়নিক হামলা চালায়নি এবং ভবিষ্যতেও চালাবে না।এ ছাড়া, সিরিয়ার সেনাবাহিনী ওই হামলার জন্য উগ্র তাকফিরি জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোকে দায়ী করেছে।

২০১৩ সালে রাশিয়া ও আমেরিকার মধ্যে স্বাক্ষরিত এক চুক্তি অনুযায়ী দামেস্ক তার কাছে থাকা সব রাসায়নিক অস্ত্র জাতিসংঘের হাতে তুলে দেয়। আন্তর্জাতিক রাসায়নিক অস্ত্র বিস্তার রোধ সংস্থা ওপিসিডাব্লিউ এই হস্তান্তর প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণ করে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here