শুক্রবার রাতে বিদেশ যাওয়ার আগে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার গণমাধ্যমকে দেয়া বক্তব্য অস্থিরতা তৈরি করবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য আবদুর রাজ্জাক।

শুক্রবার রাতে প্রধান বিচারপতির দেয়া বক্তব্যের তাৎক্ষণিক গণমাধ্যমকে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

আবদুর রাজ্জাক বলেন, প্রধান বিচারপতি যাওয়ার আগে যে লিখিত বক্তব্য দিয়ে গেছেন, তাতে স্পষ্ট হয়েছে তার এ বক্তব্য অসৎ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। এটা হতাশাজনক বক্তব্য। তার এ বক্তব্য অস্থিরতা তৈরি করবে। প্রধান বিচারপতি তার ছুটির আবেদনে লিখেছেন, তিনি অসুস্থ। এখন তার মুখে এই বক্তব্য শোভা পায় না।

সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় গণমাধ্যমকে বলেন, প্রধান বিচারপতি যদি নিজেকে সুস্থ দাবি করেন, তাহলে লিখিতভাবে অসুস্থ দাবি করে ছুটি নিলেন কেন। তিনি লিখিতভাবে বলবেন একটা আবার মৌখিকভাবে আরেকটা বলবেন এটা তো হয় না। এটা তার কাছে প্রত্যাশিত নয়। এটা তার পরস্পরবিরোধী বক্তব্য, যা অগ্রহণযোগ্য ও অসমীচীন। প্রধান বিচারপতির এ বক্তব্য হতাশাজনক।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ গণমাধ্যমকে বলেন, প্রধান বিচারপতির বক্তব্য হতাশাজনক। ছুটি চেয়ে তার লিখিত বক্তব্য আর দেশ ছাড়ার আগের বক্তব্যে মিল নেই। এ ধরনের বক্তব্যের পেছনে কোনো উদ্দেশ্য থাকতে পারে। তার লিখিত বক্তব্য অন্য কেউ ছড়িয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখতে হবে।

আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম গণমাধ্যমকে বলেন, প্রধান বিচারপতি বিদেশ যাওয়ার জন্য রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করেছেন। সেখানে তিনি অসুস্থতার কথা বলেছেন। কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নয়, তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ছুটি মঞ্জুর করা হয়েছে। প্রধান বিচারপতি যে অসুস্থ, তা প্রমাণিত হয়, তিনি আইসিডিডিআরবিতে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। তিনি তার লিখিত আবেদনেই বলেছেন, তিনি অসুস্থ। তার ছুটি চাওয়ার পেছনে আওয়ামী লীগ বা সরকারের কোনো চাপ ছিল না।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here