২০৫০ সালের মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সুপারপাওয়ার হতে যাচ্ছে চীন। এ জন্য তারা শক্তিশালী কর্মপরিকল্পনাও নিয়ে ফেলেছে।
এ পরিকল্পনা প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট সি জিনপিং। ন্যাশনাল কংগ্রেসে বক্তব্যে তিনি বলেছেন, চীনকে বিশ্ব নেতা (গ্লোবাল লিডার) বানাতে চান তিনি। প্রতি ৫ বছর পর পর চীনে ন্যাশনাল কংগ্রেস বসে। এবারও তাই হয়েছে।
সেখানে তিনি বলেন, তাদের টার্গেট ২০৫০ সাল। এ সময়ের মধ্যে চীনকে বিশ্ব নেতা হতে হবে। চীনের গ্রেট হলে সাড়ে তিন ঘন্টা বক্তব্য রাখেন তিনি। ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির এই সম্মেলনে তিনি বলেন, এখন সময় এসেছে চীনকে শক্তিশালী শক্তি হয়ে ওঠার, যে চীন রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামরিক ও পরিবেশগত ইস্যুতে বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে।
তিনি বলেন, এটা চীনের উন্নয়নের জন্য নতুন এক ঐতিহাসিক সন্ধিক্ষণ। চীনা জাতি জেগে উঠেছে। তারা অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হয়েছে। শক্তিশালী হয়ে উঠছে। চমৎকার এক পুনর্জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে। এটা এমন একটা যুগ হবে যখন চীনারা দেখবে (বিশ্ব নেতৃত্বের) কেন্দ্রের খুব কাছাকাছি তারা এবং মানবতার উৎকৃষ্ট সেবায় তারা নিয়োজিত। তিনি আরো বলেন, চীন একটি মহৎ জাতি। এটা নানা ঘাত-প্রতিঘাত, বিদ্বেষের ভিতর দিয়ে এগিয়ে গেছে তারা। চীনের নাগরিকরা মহান। তারা কঠোর পরিশ্রমী। খুব সাহসী। তারা কখনোই থমকে দাড়ায় না।
উল্লেখ্য, ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির চেয়ারম্যান এখন সি জিনপিং। ২০১২ সাল থেকে তিনি দেশের প্রেসিডেন্টেরও দায়িত্ব পালন করছেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকেই সি জিনপিং নিজেকে রাষ্ট্রনায়কোচিত হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন। বোঝানোর চেষ্টা করছেন দায়িত্বশীল বৈশ্বিক শক্তি হলো চীন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here