আত্মঘাতি প্রথম গোলে ঘরের মাঠে এগিয়ে যায় রিয়াল মাদ্রিদ। এরপর মার্কো অ্যাসেনসিও আর মার্সেলোর গোলে ভর করে এইবারের বিপক্ষে ৩-০ ব্যবধানে জয় পেয়েছে লস ব্লাঙ্কোসরা।

রোববার রাতে মার্কো আসেনসিও ও মার্সেলোর গোলের পাশাপাশি পাওলো অলিভিয়ের কল্যাণে একটি আত্মঘাতি গোল উপহার পেয়েছে লস ব্লাঙ্কোসরা। তাতে জিনেদিন জিদানের দলের জয়টা ৩-০ গোলের।

লা লিগার শুরুতে হোঁচট খাওয়া রিয়াল তাতে ক্রমেই ফিরছে আপন চেহারায়। ৯ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে যদিও পয়েন্ট টেবিলের তিনে আছে দলটি। এক পয়েন্টে তাদের চেয়ে এগিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ভ্যালেন্সিয়া। ২৫ পয়েন্টে শীর্ষে বার্সেলোনা।

সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এইবারের আত্মবিশ্বাস নাড়িয়ে দিয়েছিল ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর তড়িৎগতির এক আক্রমণ। তখন পর্তুগিজ তারকার বুলেট গতির শট ঝাঁপিয়ে পড়ে ফেরান অতিথি গোলরক্ষক।

শুরুর দিকে ক্ষিপ্রতা ছিল এইবারের খেলায়ও। ম্যাচের ৫ মিনিটে জর্ডানের আচমকা শট সতর্ক থাকায় ঠেকিয়ে দিতে পেরেছেন রিয়াল গোলরক্ষক।

রিয়ালের গোলের শুরুটা আবার এইবারের ভুলের অবদানে। ১৭ মিনিটে বক্সে মার্কো আসেনসিওর ক্রসে বল পেয়ে হেড করতে যান সার্জিও রামোস। সেটি বিপদমুক্ত করতে গিয়ে পাওলো অলিভেইরাও মাথা ছুঁইয়ে উল্টো নিজেদের জালেই জড়িয়ে বসেন।

ম্যাচের আধাঘণ্টা পেরনোর আগেই এইবারের বিপক্ষে ব্যবধান দ্বিগুণ করেছে রিয়াল। ২৮ মিনিটে ইস্কোর ক্রসে আসেনসিওর ভলি অতিথি গোলরক্ষক ঠেকাতে যেয়ে শিশুতোষ ভুল করেন, বল সোজা জালে।

রোনালদো পরে গোল খরা ঘোচাতে মরিয়া হয়েছেন। কিন্তু ৬৭ মিনিটে লুকা মদ্রিচের থালায় সাজানো বল এইবার গোলরক্ষক দিমিত্রভের গায়ে মেরে বসেন সিআর সেভেন।

পরে অসাধারণ এক গোলে এইবারের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকেছেন মার্সেলো। করিম বেনজেমার সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় বলের আদান-প্রদান করে ৮২ মিনিটে দুর্দান্ত ফিনিশিংয়ে লস ব্লাঙ্কোসদের তৃতীয় গোলের উল্লাসে ভাসান ব্রাজিলিয়ান লেফট-ব্যাক।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here