প্রতিভাবান বোলার খুঁজে নিতে ‘ফিউচার সিক্সার্স’ কার্যক্রম শেষ করেছে বিপিএলের নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি সিলেট সির্ক্সাস। হাজারো প্রতিযোগি থেকে যাচাই-বাছাই শেষে দশ বোলারকে মনে ধরেছে পাকিস্তান কিংবদন্তী ওয়াকার ইউনিসের। আর এখান থেকে সেরা ক’জনকে দেখা যেতে পারে বিপিএলে বলেছেন সিলেট সিক্সার্সের প্রধান নির্বাহী।

একটা সময়ে জাতীয় দলের নিয়মিত মুখ পেইসার তাপস বৈশ্য আর স্পিনার এনামুল হক জুনিয়র। তবে এরপর দীর্ঘসময় ধরে এ অঞ্চল থেকে ভালোমানের ক্রিকেটার উঠে আসেনি। এবার ভবিষ্যতের তারকা বোলার খুঁজে বের করতে উদ্যোগ নিয়েছে বিপিএলের দল সিলেট সিক্সার্স। সিলেট বিভাগের চার জেলা হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ ও সিলেট জেলা থেকে এক হাজারেরও বেশি প্রতিযোগী অংশ নেয়, যা থেকে মূল পর্বে সুযোগ পায় ৮২ জন।

সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়ামে বুধবার সেরা ১০ বাছাই করেন সুলতান অব সুইং খ্যাত পাকিস্তানী পেইসার ওয়াকার ইউনুস। আসন্ন বিপিএলে এদের মধ্যে থেকে সেরা পাফরর্মারকে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলাতে চান অয়োজকরা।

স্বল্প সময়ে যা দেখেছেন তাতে খুশি ওয়াকার ইউনুস। সাকিব-মুস্তাফিজদের উত্তরসুরীদের জন্য দিয়েছেন টিপসও। তবে আর্ন্তজাতিক মানের হতে দীর্ঘ অনুশীলন প্রয়োজন পরামর্শ এই পেইসারের।

পাকিস্থানের সাবেক ক্রিকেটার ওয়াকার ইউনুস জানান, ট্যালেন্ট হান্টে যারা অংশগ্রহন করেছে তারা আসলেই খুব মেধাবী। সিলেট সিক্সার্স তাঁদের যে সুযোগটি করে দিয়েছে সেটা আসলেই অসাধারণ। এখানে অনেক খেলোয়াড়ই আছে যারা অনেক ছোট শহর থেকে এসেছে। তাদের জন্য এখানে মানিয়ে নেয়াটা সোজা নয়। তবে, এখান থেকেই ভালো খেলোয়াড় উঠে আসবে বলে আশা করছি।

ওয়াকারের কাছ থেকে বোলিংয়ের নানা কৌশল রপ্ত করেছেন অংশগ্রহণকারীরা। স্বল্প সময় কাছে পেলেও এই লিজেন্ডারী বোলারের সান্নিধ্য পেয়ে বেশ খুশি সবাই।

জাতীয় দলের পাইপলাইন শক্ত করতে এধরনের ট্যালেন্ট হান্ট নিয়মিত আয়োজন করা প্রয়োজন বলে মনে করেন ওয়াকার ইউনুস।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here