গ্রুপের তিন ম্যাচেই জয়। এরপর একে একে শেষ ষোলো, কোয়ার্টার ফাইনাল ও সেমিফাইনাল জিতে প্রথমবার ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফাইনালে উঠলো ইংল্যান্ড। কিন্তু অদম্য এই দলকে দুই গোলে পেছনে ফেলেছিল স্পেন। ১৯৯১, ২০০৩ ও ২০০৭ সালের ফাইনাল খেলা স্প্যানিশরা যেন শিরোপার সুবাস পেতে শুরু করেছিল আধঘণ্টা যেতেই। তবে তাদের আরেকবার শিরোপা না পাওয়ার আক্ষেপে পোড়ালো ‘ইয়ং লায়ন্স’। দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনে ৫-২ গোলে জিতে প্রথমবার শিরোপা হাতে নিলো ইংল্যান্ড। তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে মালিকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ব্রাজিল।

কলকাতার যুব ভারতী ক্রীড়াঙ্গনে (সল্ট লেক স্টেডিয়াম) শনিবার তিনবারের ফাইনালিস্টদের বিপক্ষে প্রথম ফাইনালে মাঠে নেমেছিল ইংল্যান্ড। মাত্র ১০ মিনিটে তাদের জালে বল জড়ান সার্জিও গোমেজ। স্পেনকে দুই গোলে এগিয়ে দেন তিনি ৩১ মিনিটে। বড় ধাক্কা খায় ইংল্যান্ড। তবে কোয়ার্টার ফাইনাল ও সেমিফাইনালে হ্যাটট্রিক করা রিয়ান ব্রুস্টার ৪৪ মিনিটে একটি গোল শোধ দেন।

সার্জিওর জোড়া গোলে এগিয়ে ছিল স্পেনএই স্ট্রাইকারের দেখানো পথে এরপর ইংল্যান্ড চলেছে কোনও ধরনের বাধা ছাড়া। দুর্দান্ত কাউন্টার অ্যাটাকে তারা কাঁপিয়েছে স্পেনের রক্ষণভাগ। যার ফলে ৫৮ মিনিটে সমতা ফেরান মরগান গিবস-হোয়াইট। ফিল ফোডেন ৬৯ মিনিটে এগিয়ে দেন ইংলিশদের। আর ফিরে তাকাতে হয়নি। শেষ ছয় মিনিটে আরও দুটি গোল হজম করে স্পেন। ৮৪ মিনিটে মার্ক গুয়েহি করেন চতুর্থ গোল নিজের দ্বিতীয় ও দলের পঞ্চম গোল করেন ফোডেন।

এর আগে কেবল তিনবার বিশ্বকাপ খেলেছিল ইংল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৭ দল। দুই বছর পরপর হওয়া এই বিশ্বমঞ্চে ২০০৭ ও ২০১১ সালে কোয়ার্টার ফাইনালে বিদায় নেয় তারা। গতবার (২০১৫) তো গ্রুপ পর্বেই বিদায় নিয়েছিল।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here