রাশিয়া গত বৃহস্পতিবার তার শয়তান-২ বা আরএস-২৮ স্মার্ট ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। পরমাণু অস্ত্রবাহী এ ক্ষেপণাস্ত্র একসঙ্গে ১২টি পরমাণু ওয়ারহেড বহন করতে সক্ষম এবং একটিমাত্র ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে পুরো একটি দেশ ধ্বংস করে দিতে পারে।

কত বড় দেশ নিশ্চিহ্ন হতে পারে তা পরিষ্কার করে বলা না হলেও বিভিন্ন সূত্রে এর আগে দাবি করা হয়েছে যে, ফ্রান্স ও জার্মানির আয়তন যত ঠিক তত বড় একটি দেশ এ ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ধ্বংস হয়ে যাবে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মস্কোর ৫০০ মাইল উত্তর থেকে এ ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়। ৩,৬০০ মাইল পথ পাড়ি দিয়ে নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে এটি আঘাত হানে। ক্রেমলিন সূত্র জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন উপস্থিত ছিলেন এবং তিনি নিজেই ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেন। রুশ প্রতিরক্ষা জানিয়েছে, যেসব লক্ষ্য নিয়ে ক্ষেপণাস্ত্রটি পরীক্ষা করা হয়েছিল তার সবই অর্জিত হয়েছে। এ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা উপলক্ষে সাবমেরিন থেকে তিনটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়। এসব সাবমেরিনের দুটি জাপান ও উত্তর কোরিয়ার কাছে এবং একটি ব্যারেন্ট সাগরে মোতায়েন রয়েছে।

শয়তান-২ বা আরএস-২৮ ক্ষেপণাস্ত্র ১০ টন বা ১০ হাজার কেজি বিস্ফোরক নিয়ে প্রতি সেকেন্ডে ৪.৩ মাইল পথ পাড়ি দিতে পারে। ক্ষেপণাস্ত্রটির ধ্বংস ক্ষমতা ৪০ মেগাটন যা ১৯৪৫ সালে জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকি শহরে আমেরিকার ব্যবহার করা অ্যাটম বোমার চেয়ে ২০০০ গুণ বেশি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here