সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিশুতে আবারো জোড়া বোমা হামলায় অন্তত ২৩ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো অন্তত ৩০ জন।

শনিবারের এই হামলার দায় স্বীকার করেছে আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট জঙ্গিগোষ্ঠী আল-শাবাব। দুই সপ্তাহ আগে ভয়াবহ এক বোমা হামলায় সাড়ে তিনশ’র বেশি নিহতের পর ফের এ বোমা হামলার ঘটনা ঘটল।

সোমালীয় সরকারের সঙ্গে দেশটির বিভিন্ন প্রদেশের রাজনৈতিক নেতা ও কর্মকর্তাদের বৈঠকের আগে আগে এই জোড়া বোমা হামলার ঘটনা ঘটলো। আল-শাবাবের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার কৌশল নিয়েই রবিবার মোগাদিশুতে বৈঠকটি হওয়ার কথা।

১৪ অক্টোবরের হামলার ব্যাপারেও আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট এই জঙ্গিগোষ্ঠীকেই সন্দেহ করা হয়। যদিও হামলাটির দায় স্বীকার করে কোনো বিবৃতি দেয়নি তারা।

কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানায়, শনিবার প্রথমে একটি হোটেলে গাড়ি বোমা হামলা চালায় জঙ্গিদলের সদস্যরা। প্রবেশপথের কাছে বোমা হামলা চালিয়ে পরে হোটেলে অবস্থান নেয় জঙ্গিরা এবং সেখান থেকে গুলিবর্ষণ করতে থাকে। শেষ রাতের দিকেও সেখান থেকে বিচ্ছিন্নভাবে গুলির শব্দ পাওয়া যায়।

বিস্ফোরকভর্তি একটি মিনিবাস দিয়ে দ্বিতীয় হামলাটি হয় আগে ব্যবহৃত পার্লামেন্ট ভবনের কাছাকাছি।

নিরাপত্তা বাহিনীর এক কর্মকর্তা জানান, হামলায় নিহতদের বেশিরভাগই বেসামরিক নাগরিক। আহতও হয়েছেন অনেকে।

হামলার ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই শহরের একটি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস অন্তত ১৫ জন আহতকে হাসপাতালে নিয়ে যায়, ঘটনাস্থলে অনেকগুলো ‘মৃতদেহ’ পড়ে আছে বলেও জানিয়েছে তারা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here