নরসিংদীর পৃথক দুটি স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে নয়জনে দাঁড়িয়েছে। আলাদা ওই দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে দুইজন শিক্ষক রয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন ২৭ জন।

সোমবার সকালে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নরসিংদী সদর উপজেলার কান্দাইল বাসস্ট্যান্ড ও শিবপুর উপজেলার কারারচর নামক স্থানে দুর্ঘটনায় এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ত্রাণ বিতরণ শেষে একটি মাইক্রোবাস সিলেট ফিরছিল। সকাল সাতটার দিকে কান্দাইল বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছলে নরসিংদী থেকে আসা নারায়ণগঞ্জগামী একটি বাসের সঙ্গে মাইক্রোটির সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসের চার যাত্রী নিহত হয়। আহত হয় ২৫ জন। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পর আরও দুইজন মারা যান।

নিহতরা হলেন আবদুল বাছেদ (৩৫), হেলাল মিয়া (২৬), কাউছার হাবিব (৩৩), শব্দর আলী (৩২), বাবুল হোসেন (৩২) ও মো. রেজাউল করিম (৩৮)। আহতদের নরসিংদী সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইলিয়াছ মোল্লা জানান, আহতদের নামপরিচয় এখনো জানা যায়নি। বাস ও মাইক্রোবাসটি পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

এদিকে শিবপুর উপজেলার কারারচর নামক স্থানে বাসের সঙ্গে লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই শিক্ষকসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও চারজন।

শিবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দুজ্জামান জানান, হবিগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী অগ্রদুত পরিবহনের একটি বাস কারারচর নামক স্থানে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি লেগুনার সঙ্গে যানটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে কারারচর মৌলভী তোফাজ্জল হোসেন উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষক আরমান মিয়া (৫০), দগরিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক ও স্থানীয় চিনিশপুর জামে মসজিদের ইমাম মাছুম বিল্লাহ (৩২) এবং লেগুনা চালক সুজন (২০) ঘটনাস্থলেই মারা যান। আহত হন লেগুনার যাত্রী সোহাগ (২৬) সামসুল হক (২৭), ফাতেমা বেগম (৩৫) ও সালমা বেগম (২২)। আহতদের নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here