ধীরে হলেও সমাজের নানা ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে সৌদি আরবের নারীরা। কয়েকদিন আগেই ইতিহাস সৃষ্টি করে গাড়ি চালানোর অনুমতি পেয়েছে তারা। গাড়ি চালানোর পাশাপাশি সৌদি ক্রীড়াঙ্গনেও পড়েছে নারীর পদধূলি। দেশটির স্পোর্টস ফেডারেশনের প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে একজন নারীকে।

এবার তাদের জন্য আরেকটি সুসংবাদ। নারীর ক্ষমতায়নের রাস্তায় আরও একধাপ উন্নতি। আগামী বছর থেকে মাঠে গিয়ে খেলা দেখতে পারবেন সৌদি আরবের নারীরা। প্রথমবারের মত এমন সুযোগ পেতে যাচ্ছেন তারা।

আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটির ক্রীড়াঙ্গণকে সমর্থন ও উৎসাহিত করার লক্ষ্যে জাতীয় ক্রীড়া কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান তুর্কি আল-আশিকের রোববার ঘোষিত সিদ্ধান্তগুলোর মধ্য এটি অন্যতম।

এই অনুমোদনের আওতায় রাজধানী রিয়াদ, জেদ্দা ও দাম্মামের স্টেডিয়ামগুলোয় যেতে পারবেন সৌদি নারীরা।

আল-আশিক বলেছেন, কর্তৃপক্ষ রিয়াদ, দাম্মাম ও জেদ্দার প্রধান স্টেডিয়ামগুলো পুনর্বাসনের কাজ শুরু করবে ২০১৮ সালে এবং তখন থেকে নারীরা মাঠে গিয়ে খেলা দেখতে পারবে। স্টেডিয়ামের ভেতর খাবারের দোকান ও মনিটর স্ক্রিন থাকবে।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান দেশটির সমাজব্যবস্থাকে আধুনিক করতে ও অর্থনীতিকে গতিশীল করতে ভূমিকা রাখছেন। সৌদি সমাজব্যবস্থায় কঠোর অনুশাসনের মধ্যে চলতে হয় নারীদের। এতে পরিবর্তন আনার ঘোষণা দিয়েছেন সৌদি যুবরাজ। আর ভিশন ২০৩০ পূরণের লক্ষ্য সামনে রেখে পরিবর্তনগুলো আনছেন তিনি।

সৌদি আরবে ধর্মীয় অনুশাসনের মধ্যে থাকা সৌদি নারীদের ভ্রমণ, কর্মক্ষেত্র বা স্বাস্থ্যগত কোন কারণে বাইরে যেতে হলে পুরুষ অভিভাবকের লিখিত অনুমতি নিতে হয়।

গত মাসে সৌদি আরবের বার্ষিক জাতীয় দিবস উদযাপনে অংশগ্রহণের জন্য মহিলাদের প্রথমবারের মতো একটি ক্রীড়া স্টেডিয়ামে তাদের পরিবারের সাথে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। এই ধরনের স্থানগুলো আগে শুধুই পুরুষদের জন্য অনুমোদিত ছিল।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here