দুই বছর পার হলেও শাহবাগে প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপন হত্যার বিচার শুরু না হওয়ায় ক্ষোভ জানিয়েছেন নিহতের স্বজনরা। একই দিনে লালমাটিয়ায় শুদ্ধস্বর প্রকাশনা কার্যালয়ে হামলার ঘটনা তদন্তেরও তেমন কোন অগ্রগতি নেই। খুনিদের বেশিরভাগকেই এখনও চিহ্নিত করতে পারেনি পুলিশ। তদন্ত কর্মকর্তারা বলছেন হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয়া ১০ থেকে ১২ জনকে খোঁজা হচ্ছে।

২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে জাগৃতি প্রকাশনীর কার্যালয়ে প্রকাশক দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করে জঙ্গিরা। কয়েক মিনিটের ব্যবধানে লালমাটিয়ায় শুদ্ধস্বর প্রকাশনা কার্যালয়ে হামলা করে ৩ জন মুক্তমনা লেখককে কুপিয়ে আহত করা হয়। এর ৬ মাস আগে হত্যা করা হয় লেখক অভিজিৎকে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট গোয়েন্দারা বলছেন, তিন ঘটনায় হামলাকারী ও নির্দেশদাতা একই গ্রুপের। তবে এখন পর্যন্ত তিন ঘটনার কোনটিরই সুরাহা করতে পারেনি আইন শৃংখলা বাহিনী। পুলিশ বলছে, দীপন হত্যার ঘটনায় এপর্যন্ত ৩ জন আটক হয়েছে বাকিরা পলাতক।

দীপন হত্যার দুবছর পার হলেও হত্যাকারীদের আটক করে বিচারের কাঠগড়ায় দাড় না করায় আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন দীপনের বাবা।

মুক্তমনা লেখক-প্রকাশক-ব্লগারদের ওপর এসব হামলার ঘটনায় কারা নির্দেশদাতা ছিল, কারাইবা সরাসরি হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে- তা এখনও শতভাগ নিশ্চিত হতে পারেনি আইন শৃংখলা বাহিনী। তদন্তও চলছে ঢিমেতালে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here