নির্বাচনকালীন সরকার পদ্ধতি নিয়ে সরকার সমঝোতায় না আসলে দেশে গণবিস্ফোরণ হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

শনিবার রাজধানীতে একটি অনুষ্ঠানে তিনি এই মন্তব্য করেন।

দেশের মানুষ এখন পরিবর্তন চায়- এমন দাবি করে মওদুদ বলেন, ‘কোন বাধাই বিএনপির অগ্রযাত্রাকে দমাতে পারবে না।’

ফেনীতে বিএনপির চেয়ারপারসনের গাড়িবহরে হামলা ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কাজ বলেও অভিযোগ করেন বিএনপি নেতা। বলেন, ‘মানুষ কি এত বোকা যে কারা হামলা করেছে তারা জানে না? দেশের ৯৯ শতাংশ জনগণ বিশ্বাস করে এই হামলা ছাত্রলীগ যুবলীগের সন্ত্রাসীরা করেছে।’

এই হামলাকে জনগণের অধিকার আদায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণ এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে আক্রমণ বলে আখ্যা দেন মওদুদ। বলেন, ‘আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যেখানে খুশি সেখানে যাবেন। শত বাঁধাও তার অগ্রযাত্রাকে রোধ করতে পারবে না। বিএনপির এ অগ্রযাত্রা আগামী দিনেও অব্যাহত থাকবে।’

আলোচনায় বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘দেশে গণতন্ত্রের লড়াই শুরু হয়েছে। এই লড়াইয়ে আমাদেরকে জয়লাভ করতে হবে। এই লড়াইয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আমাদের গণতন্ত্রের স্বপক্ষে অবস্থান নিতে হবে।’

দুদু বলেন, ‘দুই ভাবে আমরা ক্ষমতায় যেতে পারি, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে পারি। একটি হচ্ছে গণঅভ্যূত্থান, আরেকটি হচ্ছে অবাধ সুষ্ঠ একটি নির্বাচন। এই নির্বাচনের প্রেক্ষাপটটা আমাদেরকে সৃষ্টি করতে হবে।’

তবে এই দুটি উপায়ের একটিও সহজ নয় মন্তব্য করে বিএনপি নেতা বলেন, ‘আমরা দাবি করব, আর সব হয়ে যাবে এটা ভাবার কোন কারণ নেই।’

দুদু বলেন, ‘স্বাধীনতার ৪৬ বছরে আওয়ামী লীগ বার বার গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। বিএনপি পক্ষ থেকে কখনও শহীদ জিয়াউর রহমান কখনও বেগম খালেদা জিয়া গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তেমনিভাবে আগামী দিনগুলোও বিএনপির দিন,খালেদা জিয়ার দিন।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আমির হোসেন বাদশার সভাপতিত্বে এবং শাহবাগ থানা কৃষকদলের সাধারণ সম্পাদক এম জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন-জাতীয় পার্টির (জাফর) সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আহসান হাবিব লিংকন, বিএনপির সহ-যুববিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মো. রহমতউল্লাহ প্রমুখ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here