সৌদি আরব জাতীয় গার্ডের প্রধানের পদ থেকে রাজ পরিবারের সবচেয়ে বিখ্যাত সদস্যকে দায়িত্ব থেকে বহিষ্কার করেছে দেশটির বাদশা সালমান বিন আব্দুল আজিজ। আর যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নেতৃত্বে একটি দুর্নীতি দমন কমিটি তৈরি করেছেন যেটি ইতোমধ্যে ১১জন রাজকুমার, চারজন বর্তমান মন্ত্রী ও ১০ জন সাবেক মন্ত্রীকে আটক করেছে। রবিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এতে করে যুবরাজের রাজমুকুট পড়ার সম্ভাবনা আরও বেড়ে গেল। শনিবার সৌদি বাদশা আরও দুজন নতুন মন্ত্রীকে নিয়োগ দিয়েছেন। মন্ত্রিসভার এই রদবদলে রাজকুমার মিতেব বিন আব্দুল্লাহকে ন্যাশনাল গার্ড মন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আর অর্থমন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন আদেল ফাকেহ।

সৌদি ন্যাশনাল গার্ড এবং নৌবাহিনী প্রধানের পদেও করা হয়েছে রদবদল। সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে প্রধান করে শনিবার সৌদি বাদশাহ নিজেই ওই দুর্নীতি দমন কমিটি গঠন করেন। আটককৃতদের নাম এবং তাদেরকে আটক করার কারণ সম্পর্কে এখনো কিছুই স্পষ্ট করা হয়নি।

সৌদি সংবাদমাধ্যম আল-অ্যারাবিয়া জানিয়েছে, ২০০৯ সালে সৌদিতে যে বন্যা হয়েছিল এবং ২০১২ সালে মার্স ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার যে ঘটনা ঘটেছিল এই বিষয়গুলো নিয়ে নতুন করে তদন্ত শুরু হয়েছে। আর সৌদি আরবের রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত বার্তা সংস্থা এসপিএ জানিয়েছে, যুবরাজকে প্রধান করে যে কমিটি গঠন করা হয়েছে সেখানে যুবরাজ চাইলে যে কাউকে গ্রেফতার করার এবং যে কারও উপরে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দেবার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে।

যুবরাজ সালমান ন্যাশনাল গার্ড মন্ত্রী প্রিন্স মিতেব বিন আব্দুল্লাহকে এবং নেভি কমান্ডার এডমিরাল আব্দুল্লাহ বিন সুলতান বিন মোহাম্মদ আল সুলতানকে বরখাস্ত করেছেন বলে জানিয়েছে এসপিএ। তবে তাদের কেন পদচ্যুত করা হয়েছে এই বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও কারণ ব্যাখ্যা করা হয়নি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here