নদীপাড়ের মানুষের জীবন কেমন হয়, কিংবা বাংলার জেলেদের স্ট্রাগল? বাংলাদেশের অসংখ্য মানুষ জীবন জীবিকার জন্য নদীতে মাছ ধরেন। তাদের গল্প কী কখনো সাম্প্রতিক সময়ের বাংলাদেশি সিনেমায় এসেছে?

নিকট অতীতে কোনো বাংলা সিনেমায় এমন গল্পের সিনেমা তৈরি না হলেও মাত্র দুই মিনিট চার সেকেন্ডের ‘হালদা’ র ট্রেলারে এসব প্রশ্নের আর সুযোগ রাখছেন না নির্মাতা তৌকীর আহমেদ। অন্তত ট্রেলারটিতে এমন ইঙ্গিতই দিলেন  তৌকীর। একেবারে খাঁটি বাংলাদেশি সিনেমা বলতে যা বোঝায়, সেটারই যেন আভাস দিয়ে গেলেন ট্রেলারে।

সর্বশেষ ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ছবি ‘অজ্ঞাতনামা’ নির্মাণ করে দেশে বিদেশে তুমুল প্রশংসা কুড়িয়েছেন তৌকীর আহমেদ। ছবিটি গেল বছরে সেরা বিদেশি ভাষা ক্যাটাগরিতে অস্কারে বাংলাদেশের প্রতিনিধিও করেছিল। আর এই বছরে তিনি নিয়ে আসছেন ‘হালদা’ নামের ছবি। মুক্তির আগেই যে ছবিটি নিয়ে দর্শকদের মধ্যে তুমুল আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। পোস্টার, গান, টিজারের পর এবার ট্রেলার রিলিজ হল। দুই মিনিটের এই ট্রেলারে একটা চমৎকার গল্পের আভাস দিয়েছেন নির্মাতা।

পুরোদস্তুর বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করে, এমন গল্পের নাম ‘হালদা’। অন্তত মুক্তি প্রতীক্ষিত ছবির ট্রেলারটি এমন ইঙ্গিতই দিল। যে ট্রেলারে উঠে এসেছে বাংলার নদী পাড়ের মানুষর সংগ্রামী জীবন। প্রকৃতি ও মোড়লদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে কিভাবে টিকে আছে জেলে সম্প্রদায়। প্রান্তিক অঞ্চলের মানুষের দুঃখ, আনন্দ, বেদনা সবই চিত্রায়ন করেছেন এই ছবিতে। শুধু তাই না,বাংলার প্রায় হারাতে বসা গৌরবজ্জ্বল ঐতিহ্য’র ছোঁয়াও সুনিপুনভাবে সিনেমায় তুলে ধরেছেন নির্মাতা। গল্পের ভাজে উঠে এসেছে হাডু ডু, নৌকা বাইচের মতো লোকজ বিষয়গুলা।

তৌকীর আহমেদের নির্মাণে বহুল প্রতীক্ষিত চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাবে ১ ডিসেম্বর। সিনেমার বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিশা, ফজলুর রহমান বাবু, মোশাররফ করিম, জাহিদ হাসান, রুনা খান, দিলার জামান, মোমেনা চৌধুরীর মতো অভিনেতারা। ‘হালদা’র সংগীত পরিচালনা করেছেন পিন্টু ঘোষ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here