বিপিএলের এবারের আসরে সবচেয়ে চমক দিয়ে যাত্রা শুরু করা সিলেট সিক্সার্স ঢাকা পর্বের প্রথম দিনে ঢাকা ডায়নাইটসের কাছে দাঁড়াতেই পারল না। সিলেটকে সহজেই হারাল ঢাকা ডায়নাইটস। সিলেটের দেয়া ১০২ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে দুই উইকেট হারিয়ে ৭ ওভার ৫ বল খেলেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায়।

ঢাকা পর্বের প্রথম দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে সাকিব আল হাসান-শহীদ আফ্রিদিদের মুখোমুখি হয়েছিল সিলেট সিক্সার্স। টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে ঢাকা বোলারদের সামনে পাত্তাই পায়নি সিলেটের ব্যাটসম্যানরা। আফ্রিদি ও সুনীল নারাইনের ঘূর্ণির সামনে কোনো ব্যাটসম্যানই দাঁড়াতে পারেননি

প্রথম তিন ম্যাচের হাফ সেঞ্চুরিয়ান উপুল থারাঙ্গা আজ ফেরেন মাত্র এক রান করে। এরপর সাব্বির রহমানও এক রান করে ফিরে যান। মাত্র ৫৩ রান করতেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান দলটির নয়জন ব্যাটনসম্যান। একটা সময় বিপিএলের দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রানের রেকর্ডের (সর্বনিম্ন রান ৪৪, খুলনা টাইটান্স। দ্বিতীয় সর্বনিম্ন ৫৮ রান, বরিশাল বুলস) সামনে ছিল সিলেট। তবে আবুল হাসান ও তাইজুলের দৃঢ়তায় সেই লজ্জায় পড়তে হয়নি তাদের।

দশম উইকেট জুটিতে ৪৮ রান যোগ করেন তারা। সবোর্চ্চ ৩০ রান করেন পেসার আবুল হাসান রাজু। তাইজুল ১৬ ও দানুশকা গুনাথিলাকা করেন ১৫ রান। এছাড়া অধিনায়ক নাসিরের ব্যাট থেকে আসে ১০ রান।

ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে শহীদ আফ্রিদি নেন চারটি উইকেট। এছাড়া সুনীল নারাইন তিনটি ও আবু হায়দার রনি দখল করেন দুটি উইকেট।

এ যেন সিলেটের চরম দৈন্যতা। প্রথম তিন ম্যাচে ঢাকা, কুমিল্লা, রাজশাহীর মতো দলগুলোকে হারিয়ে সমালোচকদের মুখ বন্ধ করে দেয় দলটি। রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে। সেই উড়ন্ত সিলেট যেন আজ ঢাকার সামনে দাঁড়াতেই পারল না।। ব্যাটিং-বোলিংয়ে কোথাও নিজেদের নৈপূর্ণ্য দেখাতে পারেনি। এর আগে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে খুলনার কাছে ছয় উইকেটে হেরে যায় নাসির হোসেনের দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

সিলেট সিক্সার্স: ২০ ওভারে ১০১/৯ (গুণাথিলাকা ১৫, নাসির ১০,আবুল হাসান ৩০*, তাইজুল ১৬* ; আফ্রিদি ১২/৪, নারাইন ১০/৩, রনি ২৩/২)

ঢাকা ডায়নামাইটস : ৭.৫ ওভারে ১০৬/২ ( আফ্রিদি ৩৭, লুইস ৪৪*, সাকিব ২২* ; ব্রেসন্যান ২০/২))

ফল : ঢাকা ৮ উইকেটে জয়ী

 ম্যাচ সেরা : আফ্রিদি

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here