আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থার (ফিফা) প্রেসিডেন্ট ছিলেন। আজ গদিচূত্য। একাধিক অনৈতিক আর্থিক লেনদেনের অভিযোগে এখন অপসৃত। তিনি তুখোড় ফুটবল ব্যক্তিত্ব সেপ ব্লাটার। এবার তার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ করলেন আমেরিকান নারী ফুটবলার হোপ সোলো। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

সম্প্রতি সোশাল মিডিয়ায় ‘মি টু’ হ্যাশট্যাগে একটি ক্যাম্পেইন শুরু হয়। নিজেদের জীবনের নানা প্রান্তে যৌন হেনস্তার শিকার হওয়া নারীরা মুখ খুলছেন এর মাধ্যমে। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলেন বিশ্বকাপজয়ী আমেরিকার নারী গোলরক্ষক সোলো।

তিনি জানিয়েছেন, ২০১৩ সালে ব্যালন ডি’অর অনুষ্ঠানের সময় তাকে যৌন হেনস্তার শিকার হতে হয়েছিল। আর যার বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তিনি হলেন তৎকালীন ফিফা বস ব্লাটার।

একটি সাক্ষাৎকারে নিজের দুঃসহ অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন মার্কিন নারী ফুটবল দলের এ সদস্য। একাধিক টুর্নামেন্টে গোল্ডেন গ্লাভসের অধিকারাণীকে অস্বস্তিকরভাবে ছুঁয়েছিলেন ব্লাটার।

সোল’র অভিযোগ, ব্যালন ডি’অরের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তার পশ্চাতদেশ খামচে ধরেছিলেন ফিফা প্রেসিডেন্ট। সেসময় ফিফা’র বর্ষসেরা নারী ফুটবলারের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়ার জন্য স্টেজে তার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন হোপ। এসময়েই ঘটে এই ন্যাক্কারজনক ঘটনা।

দুইবারের অলিম্পিকজয়ী তারকা জানান, নিজের জাতীয় দলের সতীর্থ অ্যাবি ওয়ামব্যাচকে পুরস্কার দিচ্ছিলেন তারা।

পুরো ঘটনায় ভেঙে পড়েন হোপ। কিন্তু সেসময় কোনো প্রতিবাদ তিনি করতে পারেননি। নিজের সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইলেই মেয়েদের ওপর রোজ ঘটে চলা ঘটনার প্রতিবাদ করেন এ মার্কিন ফুটবলার।

এক পোস্টে তিনি লিখেছেন, কীভাবে নারী ফুটবলাররা দিনের পর দিন কোচ, সাপোর্ট স্টাফ ও অন্য খেলোয়াড়দের হাতে হেনস্তার শিকার হন। এমনকি তাদের নিয়ে বিভিন্ন সময়ে নানা অশ্লীল মন্তব্যও করা হয়।

নারী বিশ্বকাপে দুইবার গোল্ডেন গ্লাভসজয়ী ফুটবলার বলেছেন, আমরা এটাকে সমাজের অঙ্গ বলে দিনের পর দিন মেনে নিয়েছি। কারণ এর বিরুদ্ধে কথা বলতে প্রচুর শক্তিও লাগে।

হোপের এই অভিযোগের পর নিঃসন্দেহে ব্লাটারের কলঙ্কের মুকুট আরো খানিকটা কালিমা লিপ্ত হলো। ১৯৯৮ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত ফিফা প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব সামালানো ৮১ বছর বয়সী ব্যক্তি কোনো শাস্তি বা তদন্তের মুখে পড়বেন কি না এখনো তা নিশ্চিত নয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here