রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রস্তুতিপর্বে জাপানের বিপক্ষে সহজ জয় পায় ব্রাজিল। একদিন আগে ফ্রান্সের লিলে জাপানকে ৩-১ গোলে পরাজিত করে তিতের দল। ব্রাজিলের হয়ে একটি করে গোল করেন নেইমার, জেসুস এবং মার্সেলো। জাপানের পক্ষে একমাত্র গোলটি আসে মাকিনোর পা থেকে। জয়ের পর চোখের জল নিয়েই সংবাদ সম্মেলন ত্যাগ করেন নেইমার।

বিশেষ করে ব্রাজিল কোচ তিতে যখন নেইমারকে নিয়ে কথা বলছেন, তখনই নেইমারের দিলে চোট লাগে। শেষমেশ গুরুর আশীর্বাদ নিয়ে চোখ মুছতে মুছতে প্রেস বক্স ত্যাগ করেন নেইমার। তিতে বলেন, ‘নেইমারের সঙ্গে আমি গত দেড় বছর ধরে একসঙ্গে কাজ করছি। শুরু থেকেই আমাকে শুনতে হয়েছে তার সঙ্গে আমার সমস্যা চলছে। কারণ, ড্রেসিংরুমে তার প্রভাব। আমরা মানুষ এবং অনেক সময় সঠিক পন্থায় প্রতিক্রিয়া দেখাই না। এটা আমার ক্যারিয়ারেও হয়েছে। এটা কি ভুল? আমাদের উচিত নেইমারের চরিত্র, তার স্বভাব এবং বিশাল হৃদয়টাকে নিয়ে কথা বলা।’

তার আগে গণমাধ্যমের সামনে ব্রাজিলিয়ান সেনসেশন নেইমার বলেছেন, ‘আমি প্যারিসে বেশ ভালো আছি। সুখে আছি। একজন প্লেয়ার হিসেবে আমি এখানে সবই পাচ্ছি। আমার সঙ্গে কাভানির কোনো ঝামেলা নেই, কোচের সঙ্গেও না।’

নেইমারকে নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। তার এসব একদমই পছন্দ না। বানানো গল্প তাকে বিরক্ত করে। ‘আমি চাই এসব বানানো গল্প বন্ধ হোক। আমি পিএসজিতে এসেছি ভালো কিছু করতে, দলে অবদান রাখতে, এসেছি আমার কোচকে সহায়তা করতে। আমি বাস্তববাদী একজন মানুষ, এসব গুজব একেবারে পছন্দ করি না।’

নেইমারের চোখেমুখে পিএসজির হয়ে শিরোপা জেতার স্বপ্ন। ‘আবারও বলছি, আমার সঙ্গে পিএসজির কোনো সমস্যা নেই। সংবাদকর্মীদের চাপে আমি বিরক্ত। আমি এমন একজন ফুটবলার যে জিততে পছন্দ করে, পিএসজির হয়ে শিরোপা ঘরে তুলতে চাই। এখানে আমি অনেক সুখী। আমি যখন বার্সা ছেড়েছি তখনও হ্যাপি ছিলাম এখনো আছি।’

গত সামার ট্রান্সফার উইন্ডোতে ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিশ্ব রেকর্ড গড়ে বার্সা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দেন নেইমার। খুব অল্প সময়ে গোটা প্যারিসে ছড়িয়ে পড়ে নেইমারের জনপ্রিয়তা। মাঠের পারফর্মেও আলোকিত ছাপ রাখতে শুরু করেন নেইমার। এখন পর্যন্ত পিএসজির হয়ে ১২ ম্যাচে ১১ গোল করেছেন নেইমার।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here