ডিমের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে প্রায় প্রত্যেকেই ওয়াকিবহাল। কিন্তু ডিমের খোলার বিষয়ে কিছু জানেন কি? ডিম সেদ্ধই খান বা ভাজা, ডিমের খোলা ঠাঁই পায় বাড়ির ডাস্টবিনে।

ডিম রান্নার পর খোলা তো ফেলেই দেন, কিন্তু এর উপকার জানেন কি?

ডিমের খোলা দিয়ে কারুকার্যের নিদর্শনও রয়েছে প্রচুর। কিন্তু এই খোলার গুণ সম্পর্কে জানলে রীতিমতো চোখ কপালে উঠবে আপনার।

গবেষকরা জানাচ্ছেন, ডিমের খোলায় প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম থাকে। যার ফলে এই ডিমের খোলা খেলে আখেরে

উপকারই হয়। প্রতিটি ডিমের খোলায় থাকে ২ গ্রাম ক্যালসিয়াম। যার মধ্যে ৯৫ শতাংশই হল ক্যালসিয়াম কার্বনেট।

আর একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের দৈনিক ১ গ্রাম করে ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন। ফলত একটি ডিমের খোলার অর্ধেক অংশই একজন প্রাপ্তবয়স্কের জন্য যথেষ্ট।

তবে সাবধান! খোলা ছাড়িয়েই মুখে পুরে দেবেন না যেন! গবেষকরা জানিয়েছেন,

এই ডিমের খোলায় প্রচুর পরিমাণে ব্যাকটেরিয়া থাকে। আর এমনি খেলে মুখ কেটে যাওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে।

তাই একটি বিশেষ প্রক্রিয়ায় এই খোলা খাওয়া উচিৎ।

প্রথমে এই খোলাগুলিকে জলে সেদ্ধ করে নিতে হবে। সেদ্ধ করা হলে খোলায় থাকা সমস্ত ব্যাকটেরিয়া মরে যায়।

এর পরে সেই সেদ্ধ খোলাগুলিকে মাইক্রোওয়েভে ১০-১৫ মিনিট ধরে ২০০ ডিগ্রি ফারেনহাইটে বেক করতে হবে।

এবার সেই খোলাগুলিকে মিক্সিতে গুঁড়ো করে ফেলতে হবে। ব্যাস, ডিমের খোলা রেডি।

এবার ওই পাউডার আপনি অল্প অল্প করে আটা, বা ময়দায় মেখে খেতে পারেন।

তবে সাবধান! অত্যাধিক ক্যালসিয়ামও কিন্তু বিপদ ডেকে আনতে পারে।-এবেলা

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here