সৌদি আরব নেতৃত্বাধীন জোট দোহাভিত্তিক একটি আন্তর্জাতিক ইসলামি সংস্থাকে সন্ত্রাসী হিসেবে কালোতালিভুক্ত করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে তুরস্ক। কাতারকে একঘরে করতে সৌদি জোট দোহার বিরুদ্ধে যে কূটনৈতিক এবং অর্থনৈতিক যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে তারই অংশে হিসেবে এ পদক্ষেপ নেয়া হলো।

গত বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে সৌদি আরব, আরব আমিরাত, বাহরাইন এবং মিশর দোহাভিত্তিক ‘আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অব মুসলিম স্কলারস’কে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে কালো তালিভুক্ত করার ঘোষণা দেয়। মিশরের প্রখ্যাত ইসলামি চিন্তাবিদ প্রফেসর ড. ইউসুফ আল কারযাভী সংস্থাটির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এছাড়া, বিশ্বব্যাপী ইসলামি শিক্ষা বিস্তারে নিয়োজিত কায়রোভিত্তিক ‘ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক কাউন্সিল ফর দাওয়া এন্ড রিলিফ’কে কালো তালিকাভুক্ত করেছে সৌদি জোট। বিভিন্ন ইসলামি আলোচনার মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদে উস্কানি দেয়ার কাজে জড়িত থাকার জন্য এসব সংস্থাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে বলে জোটের বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গতকাল (শুক্রবার) ‘আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন অব মুসলিম স্কলারস’কে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে কালো তালিভুক্ত করার সৌদি জোটের সিদ্ধান্তের কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছে, এটি অত্যন্ত ‘দুঃখজনক’ ঘটনা। তুরস্কের আনাদোলু সংবাদ মাধ্যম এ খবর দিয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি’র সভাপতি দেশ হিসেবে আমরা সৌদি জোটের এ সিদ্ধান্তকে ‘মারাত্মক ভুল’ হিসেবে বিবেচনা করছি। এ ধরনের সিদ্ধান্ত ইসলাম বিরোধী পক্ষগুলোর স্বার্থে কাজ করবে।”

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here