বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে ইউনেস্কোর বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি দেয়ায় সারাদেশে শনিবার সরকারি উদ্যোগে আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ নিয়ে শীর্ষনিউজ প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন নি¤েœ তুলে ধরা হলো।

চৌগাছা: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে ইউনেস্কোর ‘মেমোরি অব দ্যা ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্ট্রারে’ অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি দেয়ায় সারা দেশের ন্যায় যশোরের চৌগাছায় আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শনিবার সকালে উপজেলা পরিষদ থেকে শোভাযাত্রাসহ শহরের বঙ্গবন্ধু মুর‌্যালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

শোভাযাত্রাটি পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশ নেন স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম মনির, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম হাবিবুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নার্গিস পারভীন, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয়, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আকলিমা খাতুন লাকী, পৌর মেয়র নূর উদ্দিন আল মামুন হিমেল প্রমুখ।

উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, পৌর এলাকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যরা শোভাযাত্রাটিকে বর্ণাঢ্য করে তোলেন।

এছাড়াও উপজেলার ১৩৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৪৬টি মাধ্যমিক ও নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ২১টি মাদ্রাসা ও ১০টি কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা আনন্দ শোভাযাত্রার আয়োজন করে।

পবিপ্রবিতে আনন্দ শোভাযাত্রা

পবিপ্রবি: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পাওয়া উপলক্ষে সারা দেশের ন্যায় পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বঙ্গবন্ধুর আবক্ষ ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুনর রশীদ।

পরে বিশ্ববিদ্যালয় মিলায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় কৃষি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. আবুল কাশেম চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুনর রশীদ, প্রো ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর মোহাম্মদ আলী, সহযোগী অধ্যাপক এবিএম  মাহবুব মোর্শেদ খান, পবিপ্রবি অ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আরিফ আহমেদ জুয়েল প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অংশগ্রহণে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা বের হয়।

শোভাযাত্রাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

সাভারে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত

সাভার: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণকে ইউনেসকো বিশ^ প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সাভারে আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে শনিবার দুপুরে সাভার উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে একটি বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। আনন্দ শোভাযাত্রাটি উপজেলা চত্বর থেকে শুরু হয়ে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে উপজেলা হলরুমে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন সাভার উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফখরুল আলম সমর, সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও শেখ রাসেল হাসান, ধামসোনা ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, বনগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিও বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা। এছাড়াও ‘ওরা ১১ জন’ চলচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়।

রাবিতে আনন্দ শোভাযাত্র

রাবি: ‘৭ মার্চের ভাষণ’কে ইউনেস্কো ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ ঘোষণা করায় আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

শনিবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধ স্মারক ভাস্কর্য- সাবাস বাংলাদেশ চত্বর থেকে শোভাযাত্রাটি শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ মিনার চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

এর আগে সাবাস বাংলাদেশ চত্বরে সমাবেশে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহান বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ সমার্থক, পরস্পরের পরিপূরক। তাঁর আদর্শ যুগ যুগ ধরে আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের চেতনাকে লালন করতে অমিত অনুপ্রেরণার অনিঃশেষ উৎস হয়ে থাকবে। জাতির জন্য তাঁর অবদানে অনস্বীকার্য।’

‘১৯৭১ সালের ৭ মার্চে তিনি যে ভাষণ দেন তা শুধু বাঙালি জাতিকেই নয়, বিশ্বের নিপীড়িত, মুক্তিকামী মানুষকে স্বাধীনতার পথে অনুপ্রাণিত করছে। ইউনেস্কো সেই ভাষণকে বিশ্ব প্রমাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি প্রদান এর কালজয়ী গুরুত্বকেই প্রতিষ্ঠিত করেছে।’

শোভাযাত্রা শেষে শহীদ মিনার চত্বরে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহার সমাপনী বক্তৃতার মধ্য দিয়ে এ আয়োজনের শেষ হয়।

শোভাযাত্রায় অন্যান্যের মধ্যে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক একেএম মোস্তাফিজুর রহমান, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এমএ বারী, ছাত্র-উপদেষ্টা অধ্যাপক জান্নাতুল ফেরদৌস, জনসংযোগ দফতরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার, প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান, সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. নূরুল্লাহ্ এবং শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অংশ নেন।

এদিকে একইভাবে দুপুরে ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পাওয়ায় রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা করেছে। রুয়েট প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহা: রফিকুল আলম বেগের নেতৃত্বে শোভাযাত্রাটি বের হয়।

পরে শোভাযাত্রাটি রাজশাহী-ঢাকা সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে রুয়েট ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে।

এছাড়াও সাতক্ষীরা, বগুড়া, বরিশাল, সিলেট, রাজশাহী, চট্টগামসহ দেশের বিভিন্ন মহানগর, জেলা, উপজেলা ও পৌরসভার উদ্যোগে আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here