যতদিন যাচ্ছে ক্রমশ ফুরিয়ে আসছে পেট্রল-ডিজেলের ভান্ডার। তাই প্রত্যেকটি দেশ এখন বিকল্প শক্তি খুঁজে। তাই ক্রমশ জনপ্রিয় হচ্ছে বায়ো-গ্যাসের মতো জ্বালানি। পাশাপাশি গাড়ি তৈরি সংস্থাগুলিও পেট্রল-ডিজেলের বিকল্প ব্যাটারো দিয়ে গাড়ি চালানোর প্রতি উৎসাহিত করছে। সেই মর্মে নিত্য নতুন গাড়িও তৈরি হচ্ছে। কিন্তু এই সমস্ত কিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছেন ব্রাজিলের পাবলিক অফিসার রিকার্দো আজাভেদো। তিনি অভিনব একটি বাইকের আবিস্কার করেছেন। যে বাইক পেট্রল কিংবা ডিজেলে নয়, চলে পানি দিয়ে। বিশ্বাস হচ্ছে না তো! হ্যাঁ এটাই সত্যি।

শুধু জলে চলা নয়, এই বাইকের মাইলেজও মাথা খারাপ করে দেওয়ার মতো। মাত্র ১ লিটার পানি দিয়ে ৫০০ কিমি পাড়ি দিতে পারে এই পানি-চালিত মোটরবাইক। আরও উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, এই বাইক চালাতে কোনও বিশেষ ধরনের জলেরও প্রয়োজন হয় না। একেবারে সাধারণ জলই বাইকের জ্বালানির ট্যাঙ্কে ব্যবহৃত হতে পারে।

কী ভাবে কাজ করে এই বাইক? আসলে এর ইঞ্জিন গঠিত প্রধানত দু’টি অংশ নিয়ে— ওয়াটার ট্যাঙ্ক, এবং একটি ব্যাটারি। ব্যাটারির ইলেকট্রিসিটি জলের হাইড্রোজেন মলিকিউলগুলিকে বিশ্লিষ্ট করে দেয়। তার পর একটি পাইপের মাধ্যমে সেই হাইড্রোজেন প্রবাহিত হয় ইঞ্জিনে। এই হাইড্রোজেনই বাইককে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার উপযোগী শক্তি উৎপাদন করে। রিকার্দোর তৈরি করা এই বাইক সব দিক থেকেই পরিবেশবান্ধব। একে তো এই বাইকে কোনও রকম খনিজ তেল খরচ হওয়ার ভয় নেই। উপরন্তু এই বাইক কোনও রকম ধোঁওয়াও উৎপাদন করে না। ফলে পরিবেশ থাকে সম্পূর্ণ সুরক্ষিত।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here