উত্তর কোরিয়ার ইতিহাসে সর্বোচ্চ উচ্চতায় শক্তিশালী আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে দেশটি। এটি যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানতে সক্ষম বলে দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া।

উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন বুধবার (২৯ নভেম্বর) রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেয়া এক ঘোষণায় হোয়াসং-১৫ নামের এই ক্ষেপণাস্ত্রটির পরীক্ষা সফল হওয়ার কথা জানান।

তিনি বলেন, সমগ্র যুক্তরাষ্ট্র এই ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় রয়েছে। এটি পরীক্ষার মধ্য দিয়ে উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক শক্তিধর রাষ্ট্র হওয়ার ঐতিহাসিক গৌরব অর্জন করেছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমে বিবিসি জানায়, পিয়ংইয়ং থেকে উৎক্ষেপণের পর ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রটি সাড়ে চার হাজার কিলোমিটার উচ্চতায় পৌঁছায় তারপর নেমে এসে বুধবার সকালে উত্তর কোরিয়া থেকে ৯৬০ কিলোমিটার দূরে জাপানের জলসীমায় পড়ে।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার প্রতিবাদ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপান, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, দক্ষিণ কোরিয়া।

উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষায় এটাই সবচেয়ে আধুনকি ক্ষেপণাস্ত্র বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফলে কোরীয় দ্বীপে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়েছে। এর আগে সেপ্টেম্বরে একটি ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে পিয়ংইয়ং।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেমস ম্যাটিস বলেছেন, উত্তর কোরিয়া এ যাবত কালের সবচেয়ে শক্তিশালী আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে।

একে পুরো বিশ্বের জন্য ঝুঁকি বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, বিষয়টির যথাযথ জবাব দেয়া হবে।

দক্ষিণ কোরিয়া বলছে, দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রটি উত্তর কোরিয়ার রাজধানীর পূর্ব দিক থেকে ছোঁড়া হয়।

এদিকে, পিয়ং ইয়ং-এর এমন উস্কানি মূলক আচরণের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে জাপান। দেশটির প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি সভার আহ্বান করেছেন।

দেশটির সরকারের মুখপাত্র ইয়োশিহিডে সুগা বলেছেন, আজ রাত তিনটার কিছু পর উত্তর কোরিয়ার পূর্ব উপকূল থেকে যে ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোঁড়া হয় তা আমাদের নিবিড় অর্থনৈতিক অঞ্চলের মধ্যে এসে পড়েছে। আমরা আর কোনোভাবেই তাদের এসব উস্কানিমূলক আচরণ মেনে নেবো না, এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট আন্তর্জাতিক মহলের কাছে পিয়ং ইয়ং-এর বিরুদ্ধে ক্রমাগত অবরোধ আরোপের আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে ব্রিটেন এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নও প্রতিবাদ জানিয়েছে ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here