হাইভোল্টেজ ফুটবল ম্যাচ। দুই দলের হবে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। এমন লড়াইয়ে ভিন্নমাত্রা দান করতে প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয় বিশিষ্টজনকে। তিনি এসে প্রথমে দুই দলের খেলোয়াড়-কর্মকর্তাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন এবং খেলার সার্বিক খোঁজখবর নেন। পরে বলে কিক মেরে ম্যাচের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। সাধারণত এটিই প্রথা বা রীতি। হরহামেশা আমরা তাই দেখে থাকি।

তবে সম্প্রতি জাপানে দেখা গেল ভিন্ন চিত্র। যা দেখলে বা শুনলে আপামর জনতার ভ্রু কুচকে যেতে পারে। তবু সত্যি। একটি ফুটবল ম্যাচে সেই দায়িত্ব পালন করেছেন আস্ত বানর।

ম্যাচটি ছিল জাপানের ঘরোয়া লিগের। জে লিগের ওই ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল সেরেজো ওসাকা ও ভিসেল কোবে। ম্যাচটি গড়ায় দেশটির বন্দরনগরী ওসাকার নাগাই স্টেডিয়ামে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিল একটি বানর।

বানরের গায়ে ছিল ওসাকার গোলাপি রঙের জার্সি, শটস ও বুট। দুই দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গেই মাঠে প্রবেশ করে সেটি। পরে দুই দলের খেলোয়াড়দের সামনে অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে তার হাতে বল তুলে দেয় রেফারি। সেন্টার থেকে তাতে কিক দিয়ে ম্যাচের উদ্বোধন করে সে। বানরের সার্বিক পারফরম্যান্সে হাসির রোল পড়ে গোটা স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে। হাসিতে ফেটে পড়েন উপস্থিত দর্শকরা।

জাপান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন স্বীকৃত ম্যাচে এমন দৃশ্যের অবতারণা ঘটানোয় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে সেরেজো ওসাকা। তার রেশ এখনো কাটেনি। সমালোচনার শিকার হলেও তা নিয়ে আফসোস নেই ওসাকার। কারণ, সেই ম্যাচে ৩-১ গোলের দুর্দান্ত জয় তুলে নেয় দলটি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here