ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এমিরেটস স্টেডিয়ামে তিন বছর বাদে জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। আর্সেনালকে হারিয়েছে ৩-১ গোলে। শুরুতেই ডিফেন্সের ভুলে দুই গোল হজম করে স্বাগতিকরা। পিছিয়ে পড়ে ইউনাইটেডের ওপর আক্রমণের ঝড় বইয়ে দেয় গানাররা।

গত জানুয়ারির পর প্রথম দল হিসেবে আর্সেনালের মাঠে লিগ ম্যাচ জিতল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। জানুয়ারিতে ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে ২-১ গোলে হারের পর ঘরের মাঠে ১৪ ম্যাচে অপরাজিত ছিল ‘গানার’রা।

এমিরেটস স্টেডিয়ামে ইউনাইটেডের জয়ের নায়ক জেসে লিনগার্ড। জোড়া গোল করেছেন ২৪ বছর বয়সি এই ইংলিশ মিডফিল্ডার।

তবে ইউনাইটেডের গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়াকেও কৃতিত্ব দিতেই হবে। ম্যাচে ১৪টি সেভ করেছেন এই স্প্যানিশ গোলরক্ষক, যা ২০০৩-৪ মৌসুমের পর প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে যৌথভাবে সর্বোচ্চ।

২০১৪ সালে চেলসির সঙ্গে সান্ডারল্যান্ডের গোলরক্ষক ভিতো ম্যানন ও ২০১৩ সালে টটেনহামের বিপক্ষে নিউক্যাসলের গোলরক্ষক টিম ক্রুলও সমান ১৪টি সেভ করেছিলেন।

আর্সেনালের মাঠে ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে এগিয়ে দিয়েছিলেন অ্যান্তোনিও ভ্যালেন্সিয়া। ১১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন লিনগার্ড।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই (৪৯ মিনিট) একটি গোল শোধ করে আর্সেনালের আশা জাগিয়েছিলেন অ্যালেক্সান্ডার লাকাজেত্তি। তবে ৬৩ মিনিটে লিনগার্ডের দ্বিতীয় গোলে স্কোরলাইন ৩-১ করে ফেলে অতিথিরা।

৭৪ মিনিটে আর্সেনালের বেলেরিনকে মারাত্মক ট্যাকল করে সরাসরি লাল দেখেন পগবা। বাকি সময়ে ১০ জন নিয়ে খেলেও ইউনাইটেডের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে সমস্যা হয়নি।

ইউনাইটেডের জয়ের দিনে জিতেছে চেলসি ও লিভারপুলও। চেলসি নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে ৩-১ গোলে আর লিভারপুল ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিওনকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে।

১৫ ম্যাচে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ২৮ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে আর্সেনাল। ২৯ পয়েন্ট নিয়ে লিভারপুল চারে ও ৩২ পয়েন্ট নিয়ে চেলসি তিনে আছে। এক ম্যাচ কম খেলে শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির ৪০ পয়েন্ট।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here