মুসিলম দেশগুলোর আপত্তি থাকা সত্ত্বেও একতরফাভাবে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিতে যাচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন প্রশাসনের সিনিয়র কর্মকর্তারা গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

কর্মকর্তা জানান, জেরুজালেমকে ইসরায়েলর রাজধানী ঘোষণা দিলেও এখনই তেলআবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস সরিয়ে জেরুজালেমে নেয়া হচ্ছে না। এতে আরও কয়েক সময় লাগতে পারে বলেও জানান তারা।

কর্মকর্তা জানান, আজ বুধবার প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর হিসেবে স্বীকৃতির বিষয়ে প্রত্যাশিত একটি বক্তব্য দেবেন।

এদিকে, তেলআবিব থেকে সরিয়ে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তরের ঘোষণা দেয়ার পরই থেকেই আরব বিশে^র নেতারা এ বিষয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। তারা যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করেও দিয়েছেন। মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তর করা হলে মুসলমানদের মধ্যে ক্ষোভ-উত্তেজনা বাড়বে বলেও মনে করছেন তারা।

জেরুজালেম ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন উভয়ের কাছেই পবিত্র স্থান হিসেবে পরিচিত।

ইসরায়েল সর্বদায় জেরুলেমকে নিজেদের রাজধানী হিসেবে মনে করে আসছে। একইভাবে ফিলিস্তিনিরাও পশ্চিম জেরুজালেমকে ভবিষ্যত ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে মনে করে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here