বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) বুধবার দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে সিলেট সিক্সার্সকে ২৫ রানে হারিয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। এই ম্যাচের মাধ্যমেই শেষ হলো লিগ পর্ব। আর এই জয়ের মাধ্যমে লিগ পর্ব শেষে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে থাকল কুমিল্লা। ৯ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম অবস্থানে থেকে বিদায় নিল সিলেট। আগামী ৮ ডিসেম্বর সন্ধ্যা সাতটায় প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

নাসিরের সিলেট এদিন টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। কুমিল্লা ১৭১ রানের টার্গেট দেয় তাদের। জবাবে সিলেট থামে ১৪৫ রানে।

পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে থাকা কুমিল্লা বড় সংগ্রহ পায় লিটন দাসের ৬৫ রানে ভর করে। লিটন জাতীয় দলের হয়ে গত অক্টোবরে ৭০ করেছিলেন। তার আগেও ফ্লপ। পরেও ফ্লপ। বিপিএলে অবস্থা আরও খারাপ ছিল। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচের আগ পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংগ্রহ ছিল ৩৪। দল কোয়ালিফায়ার নিশ্চিত করলেও তিনি ছিলেন বিপাকে।

বাটলারের সঙ্গে ওপেন করতে নামেন লিটন। দলীয় ২৪ রানে বাটলার (৩) ফিরে গেলেও লিটন একপাশ ধরে থাকেন। সেই যাত্রায় তিনি ইমরুলকেও (৭) দ্রুত হারান। এরপর সঙ্গী হিসেবে পান স্যামুয়েলসকে।

লিটন ৪৩ বলে ৬৫ রানে সাজঘরে ফেরেন। হুইটলির বলে ধরা পড়ার আগে  ছয়টি চার এবং তিনটি ছয়ে এই রান করেন তিনি। স্যামুয়েলসও ৪৩টি বল খেলেন। তিনি করতে পারেন ৫৫।

জবাব দিতে নেমে দ্বিতীয় ওভারে মোহাম্মদ রিজওয়ানকে (৬) হারায় সিলেট। ফ্লেচার ফেরেন ৩০ বলে ২৫ করে। গোটা টুর্নামেন্টে একটি ফিফটি পাওয়া নাসির হোসেন করতে পারেন ১২ বলে ১২। বাবর আজম ১৯ বলে ২০ করে পথ ধরলে সিলেট আরও বিপাকে পড়ে যায়।

সাব্বির রহমান অবেলায় একটা লড়াই শুরু করেন। তাও থেমে যায় চারটি চার একটি ছয়ে। ২০ বলে ৩১ করে ফেরেন তিনি।

কুমিল্লার মেহেদী হাসান ৪ ওভারে ৩১ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন। ক্রেমার ৩ উইকেট নিতে খরচ করেন ১৫।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: ২৫ রানে জয়ী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ইনিংস: ১৭০/৪ (২০ ওভার)

(লিটন দাস ৬৫, জস বাটলার ৩, ইমরুল কায়েস ৭, মারলন স্যামুয়েলস ৫৫, শোয়েব মালিক ২৮*, হাসান আলী ১*; নাবিল সামাদ ১/৩৩, সোহেল তানভীর ০/৩০, নাসির হোসেন ১/২০, মোহাম্মদ শরীফ ০/২৫, কামরুল ইসলাম রাব্বী ১/২৯, রস হোয়াইটলি ১/২৬)।

সিলেট সিক্সার্স ইনিংস: ১৪৫/৭ (২০ ওভার)

(মোহাম্মদ রিজওয়ান ৬, আন্দ্রে ফ্লেচার ২৫, নাসির হোসেন ১২, বাবর আজম ২০, সাব্বির রহমান ৩১, রস হোয়াইটলি ৬, সোহেল তানভীর ৯, মোহাম্মদ শরীফ, শরীফুল্লাহ; আল-আমিন হোসেন ০/২৭, মেহেদী হাসান ২/৩১, হাসান আলী ২/৩৫, গ্রায়েম ক্রেমার ৩/১৫, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ০/২৬)।

প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ: লিটন দাস (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স)।

 

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here