আপনার প্রেয়সিকে ঠিকঠাক দেখেছেন তো? না দেখলে এবার দেখে নিন। কারণ ঠোঁট দেখেই প্রেয়সিকে চেনা যায়! আসুন জেনে আপনার প্রেয়সির ঠোঁট কেমন হবে সে সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

ধনুকের মতো ঠোঁট  
একে বলে ‘কিউপিড লিপস’। এমন ঠোঁটের মেয়েরা খুবই চটপটে হয়ে থাকে। আবার সৃষ্টিশীলও হয়। কেবলমাত্র মিষ্টি কথার জাদুতে কারও হাত থেকে বন্দুক ছিনিয়ে নিতে পারে। একটু সাবধান থাকবেন। যে কোনও মুহূর্তে আপনাকে বিপদে ফেলে দিতে পারে এমন কন্যারা।

পুরু ঠোঁট
এমন ঠোঁট নিজের আনন্দের ও অন্যের ঈর্ষার কারণ হয়ে থাকে। এমন অধর যাঁদের থাকে, তাঁরা অত্যন্ত ভাল মানুষ হয়। সম্পর্ককে গুরুত্ব দিতে জানে। নিজের আগে অন্যদের কথা ভাবেন এরা। আবার খুবই আত্মবিশ্বাসী হয়েও থাকেন। কোনও কাজের দায়িত্ব একবার নিলে তা পালন করেই ছাড়েন।

সরু ঠোঁট
এরা খুবই স্বনির্ভর হয়ে থাকেন। নিজেদের নিয়েই ব্যস্ত থাকেন। কিন্তু তা বলে এই নয় যে, এরা মানুষের সঙ্গে মিশতে পারেন না। বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা এরা ভালই দিতে পারেন। তবে সম্পর্কের ক্ষেত্রে এদের একটু মাথা ঠাণ্ডা রাখা প্রয়োজন।

চওড়া ঠোঁট
এমন মেয়েরা ঘর আলো করে থাকেন। যেখানে থাকেন আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে ওঠেন। কথা বলতে এরা খুবই ভালবাসেন। আর আপনাকেও নিজের আলোচনার মধ্যে টেনে নেয়ার ক্ষমতা রাখেন। এমন একজন বন্ধু, যার সঙ্গে রাত দু’টোর পরও জমিয়ে আড্ডা দেয়া যায়।

সুডৌল ঠোঁট
খেয়াল করবেন অনেকের ঠোঁটের মাঝের অংশটি একটু বেশিই ফোলা থাকে। এমন নারীরা একটু নয় অনেকটাই ড্রামা কুইন হয়ে থাকেন। নিজেই নিজের ফেভারিট। ঠিক ‘জব উই মেট’-এর করিনা কাপুরের মতো। তোয়াজ জিনিসটা এদের খুবই পছন্দের।

সোজা ঠোঁট 
কোনও কিউপিড-এর খাঁজ নেই, ঠোঁটের উপরিভাগ সমান। এমন মেয়েরা ভীষণ আবেগপ্রবণ হয়। এসব নারীরা বেশ সহানুভূতিশীল হয়ে থাকে। কোনও সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে লাভ-ক্ষতি দেখে না এমন মেয়েরা।

এখনো যারা সঙ্গী ছাড়া আছেন তারা আর দেরি না করে ঠোঁট চেনে সঙ্গী বানান। তাহলেই আপনার এতদিনের সব কষ্ট দূরীভূত হয়ে যাবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here