একেতো পয়েন্ট টেবিলের দুই শীর্ষ দল, তার উপর নগর প্রতিদ্বন্দ্বী। ডাগআউটে আবার বিশ্বের অন্যতম সেরা দুই কোচ, পেপ গার্দিওলা ও হোসে মরিনহো। রক্ষণাত্মক বনাম আক্রমণাত্মক ফুটবলের লড়াই। যাতে শেষ হাসি গার্দিওলার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে যে তাদেরই মাঠে ২-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।

চলতি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে যেন হারতে ভুলে গেছে ম্যানসিটি। ১৬ ম্যাচে ড্র কেবল একটি, বাকিগুলোতে প্রায়ই প্রতিপক্ষকে দুমড়ে-মুচড়ে দিয়েছে গার্দিওলার শিষ্যরা। টানা ১৪ ম্যাচে জিতে করেছে প্রিমিয়ার লিগের রেকর্ড। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানটাও অন্যদের ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে গেছে সিটিজেনরা। ১৬ ম্যাচে ৪৬ পয়েন্ট তাদের। নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানইউ ১৬ ম্যাচে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে থাকল টেবিলের দুইয়ে।

রোববার শহর ভাগ হয়ে পড়েছিল ফুটবলের রোমাঞ্চে। তুষার পড়ায় হিমাঙ্কের নিচে থাকা ওল্ড ট্রাফোর্ডে তাতে উত্তাপের দেখা মিলেছে ম্যাচের শুরু থেকেই। রক্ষণাত্মক কৌশলে দলকে খেলিয়ে দুর্নাম কুড়ানো মরিনহো এদিন শিষ্যদের দিয়েছেন আক্রমণের মন্ত্র। তাতে বিশ্বের সবচেয়ে দামী রক্ষণ নিয়ে ভালই পরীক্ষা দিতে হয়েছে ম্যানসিটিকে। পরে ঘর সামলে প্রতিপক্ষের দুর্গও কাঁপিয়েছে দলটি।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে ম্যাচের ৪৩ মিনিটে ম্যানসিটির হয়ে প্রথম গোল পান ডেভিড সিলভা। কেভিন ডি ব্রুইনের পাস ধরে ছয় গজ বক্সের মধ্যে থেকে স্বাগতিক গোলরক্ষককে বোকা বানান সিলভা। তবে প্রথমার্ধের ইনজুরি সময়ে গোলের শোধ দিয়ে লড়াইয়ের উত্তাপ বাড়িয়ে দেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের তরুণ ফরোয়ার্ড মার্কাস রাশফোর্ড।

বিশ্রাম শেষে ম্যাচের ৫৪ মিনিটে আবারও এগিয়ে যায় ম্যানসিটি। এ সময় বাঁ-দিক থেকে ডি ব্রুইনের ক্রস ফেরাতে রোমেলু লুকাকুর নেওয়া শট ক্রিস স্মলিংয়ের গায়ে লাগলে গোলমুখে বল পেয়ে যান নিকোলাস ওটামেন্দি। আর সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ম্যানইউর জালে বল পাঠিয়ে দেন আর্জেন্টাইন এ তারকা। ম্যাচের বাকি সময়ে সমতায় ফিরতে বেশ কয়েকটি প্রচেষ্টা চালালেও গোল পায়নি ম্যানইউ। শেষপর্যন্ত আর গোল না হওয়ায় ২-১ ব্যবধানে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ম্যানচেস্টার সিটি।

ইংলিশ লিগে ১৬ ম্যাচে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ম্যানসিটি। ১১ পয়েন্ট পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে মরিনহোর ম্যানইউ। আর ৩২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন চেলসি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here