মাত্র এক লাখ ৪০ হাজার ইউরোতে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি কিনে নিলেন বার্লিন থেকে ১২০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত জার্মানির ছোট্ট গ্রাম আলউইন। জীবিকার সন্ধানে এখানকার বেশিরভাগ বাসিন্দাই গ্রাম ছেড়ে চলে গেছেন। কিন্তু বাপ-দাদার ভিটার মায়া কাটাতে পারেননি প্রবীণ বাসিন্দারা। তবে সেই সংখ্যাটা অল্পই।

ওই গ্রামের বর্তমান বাসিন্দা মাত্র ২০ জন, যাদের বেশিরভাগেরই বয়সের ভারে আর কাজকর্ম করার ক্ষমতা নেই। তাদের রোজগার নেই বললেই চলে। চরম দারিদ্র্য ও অবহেলায় দিন কাটে।

সম্প্রতি গ্রামটি নিলামে তোলা হয়। নিলামের শুরুতে দাম ওঠে এক লাখ ২৫ হাজার ইউরো। তবে শেষমেষ এক লাখ ৪০ হাজার ইউরো মালিকানা বদলে যায় আলউইনের। গ্রামটি কিনে নেন অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি।

ইউরো চালু হওয়ার আগে জার্মানির মুদ্রা ছিল ডয়েসমার্ক। ২০০০ সালে প্রতীকী এক ডয়েসমার্কের দামে এক ব্যক্তির কাছে আলউইন গ্রামটি বিক্রি করে দেওয়া হয়েছিল।

জানা গেছে, নব্বইয়ের দশকে কমিউনিস্ট শাসিত সাবেক পূর্ব জামানির অন্তর্ভুক্ত ছিল আলউইন। তখন গ্রামটির আর্থিক সমৃদ্ধি ছিল। কাছেই থাকা একটি ইটভাটায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন গ্রামের বাসিন্দারা। তখন প্রত্যেক পরিবারের আর্থিক স্বচ্ছলতা ছিল।

কিন্তু ১৯৯০ সালে দুই জার্মানি এক হয়ে গেলে ধীরে ধীরে বিস্মৃতির অতলে হারিয়ে যেতে থাকে আলউইন। ইটভাটাটি বন্ধ হয়ে যায়, গ্রামবাসীদের রুটি-রুজিতে পড়ে টান। জীবিকা সন্ধানে গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র পাড়ি দিতে শুরু করেন বাসিন্দারা।

এভাবে একসময়ে কার্যত জনহীন হয়ে পড়ে এক সময়ের সমৃদ্ধশালী গ্রামটি। জার্মানি সরকারও গ্রামটিরর উন্নয়নে সেভাবে কোনো উদ্যোগ নেয়নি বলে অভিযোগ আছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here