ভারতের তদন্তকারী সংস্থাগুলো সন্ত্রাসবাদে জড়িত থাকার বিষয়ে যথেষ্ট প্রমাণপত্র পেশ করতে না পারায় ইসলামি বক্তা জাকির নায়েককে গ্রেপ্তার করতে অস্বীকার করেছে ইন্টারপোল। একইসঙ্গে ইন্টারপোলের সব শাখা থেকে জাকির নায়েকের সব তথ্য মুছে ফেলার আদেশ দিয়েছে সংস্থাটি।

জাকির নায়েকের ঘনিষ্ঠ এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, জাকির নায়েকের আইনজীবীকে একটি চিঠি দিয়ে রেড কর্নারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, ভারত যে রেড কর্নার নোটিশ জারি করার দাবি জানিয়েছিল সেটা বাতিল করে দেয়া হয়েছে।

পর্যাপ্ত প্রমাণ না থাকাতেই এই আবেদন বাতিল করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। এরপরই জাকির নায়েক এক ভিডিও বার্তায় জানিয়েছেন যে তিনি শীঘ্রই ভারতে আসতে চান।

জাকির নায়েকের আইনজীবী পিটার বিনিং কিছুদিন আগে ইন্টারপোলকে দেয়া এক চিঠিতে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে জারি হওয়া নোটিশ তুলে নিতে বলেন। এরপরই ইন্টারপোল জানিয়েছে, খতিয়ে দেখার পর এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এই ব্যাপারে তদন্ত করতে গিয়ে যে তথ্য এসেছে ইন্টারপোলের হাতে, তা ইন্টারপোলের আইনবিরুদ্ধ। তাই তখনই সেই তথ্য ডিলিট করে দেয়া হয়। চলতি বছরের নভেম্বর মাসে সেই তথ্য ডিলিট করে দেয়া হয়। ভারতীয় সংস্থার পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলেই জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে রেড কর্নার নোটিশ জারির আবেদন প্রত্যাহার করে ইন্টারপোল।

এর আগে ভারতের পক্ষ থেকে ইন্টারপোলের কাছে আবেদন করা হয়, যাতে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে রেড কর্নার নোটিশ জারি করা হয় ও তাকে ভারতে ফিরিয়ে এনে সন্ত্রাসে জড়িত থাকার অভিযোগে শাস্তির ব্যবস্থা করা হয়।

২০১৬ সালের নভেম্বরে জাকির নায়েকের সংস্থা ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনের বিরুদ্ধে বেআইনি কার্যকলাপের অভিযোগ এনে এই সংস্থাটিকে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ইউএপিএ ১২০ বি, ১৫৩ এ, ২৯৫ এ, ২৯৮ এবং ৫০৫(২) ধারায় মামলা করা হয়।

জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ভারতের নতুন প্রজন্মকে মৌলবাদে উসকানি দিয়ে সাম্প্রদায়িক অশান্তি তৈরির চেষ্টার অভিযোগ আনে ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ। এর পরই গ্রেপ্তার এড়াতে ভারত ছেড়ে পালিয়ে যান জাকির নায়েক। পরে জানা যায়, জাকির নায়েক মালয়েশিয়ায় রয়েছেন।

গত মাসে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, জাকির নায়েককে ভারতে ফেরানোর প্রক্রিয়া প্রায় সম্পূর্ণ। এর পর ভারত সরকারের পক্ষ থেকে মালয়েশিয়া সরকারকে এ ব্যাপারে অনুরোধ জানানো হবে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ইন্টারপোলের এই সিদ্ধান্ত জাকির নায়ককে ভারতে ফেরানোর ক্ষেত্রে বড়সড় বাধার সৃষ্টি হলো বলেও মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

 

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here