বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ( বিপিএল) চলাকালে বাংলাদেশ দলের হেড কোচের দায়িত্ব নিতে আগ্রহী পাকিস্তানের সাবেক কোচ রিচার্ড পাইবাস এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক কোচ  ফিল সিমন্স দিয়েছেন প্রেজেন্টেশন। তবে হাই প্রোফাইল কোচের সন্ধানে থাকা বিসিবি আরো বড় প্রোফাইলের কোচের কথা ভাবছে।

২০১১ বিশ্বকাপে ভারতকে ট্রফি উপহার দেয়া দক্ষিন আফ্রিকান কোচ গ্যারি কারস্টেনের দিকে হাত বাড়িয়েছে বিসিবি। ২৪ ঘন্টা আগে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ( আইপিএল) দল রয়েল চ্যালেঞ্জার বেঙ্গালুরুর কোচ হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন দক্ষিন আফ্রিকার ক্রিকেটে অন্যতম সেরা টপ অর্ডার গ্যারি কারস্টেন। অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া টুয়েন্টি-২০ ক্রিকেট বিগ ব্যাশেও চুক্তিবদ্ধ তিনি। সে কারনে বাংলাদেশ দলের হেড কোচের প্রস্তাবে সম্মতি দেননি ১০১ টেস্টে ২১ এবং ১৮৫ ওয়ানডেতে ১৩ সেঞ্চুরির মালিক।

পরিস্থিতির মুখে তাকে পরামর্শক হিসেবে প্রস্তাব দিয়েছে বিসিবি, এ তথ্যই বুধবার নিজ কার্যালয়ে দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি-‘ কারস্টেনের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তবে প্রধান কোচ নয়, পরামর্শক হিসেবে তাকে নিতে চাই আমরা। তিনি শুধু জাতীয় দল নয়, অনূর্ধ্ব-১৯ এবং হাই পারফরমেন্স নিয়েও কাজ করবেন। অবশ্য ফেব্রুয়ারির আগে তাকে পাওয়া যাবে না। কারস্টেন আইপিএল  সঙ্গে যুক্ত হতে যাচ্ছেন, বিগ ব্যাশেও আছেন। ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিগ ব্যাশে থাকবেন তিনি। যদি এই দু’টি লিগে আমরা তাকে কোচিংয়ের সুযোগ দেই, তাহলে তিনি রাজি হবেন। তবে আমরা চাই না, আমাদের প্রধান কোচ অন্য কোথাও কাজ করুক। তাই প্রধান কোচ হিসেবে কারস্টেন আমাদের চাহিদা পূরণ করতে পারবেন না।’ বিগ ব্যাশ এবং আইপিএলের অ্যাসাইনমেন্টের কারনে বছরে ৬ মাস তাকে দিতে হবে ছুটি, তা মেনে নিয়েই পরামর্শকের প্রস্তাব দিয়েছে বিসিবি কারস্টেনকে। আগামী ফেব্রুয়ারিতে বিগ ব্যাশ সম্পন্ন হওয়ার পর ঢাকায় আসবেন গ্যারি কারস্টেন, এমন তথ্যই দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি।

এদিকে কারস্টেনকেই শুধু নয়, ২০০৮ সালে চট্টগ্রাম টেস্টে ওপেনিং জুটিতে স্মিথের সঙ্গে বিশ্বরেকর্ডের অংশীদার নিল ম্যাকেঞ্জি, জিম্বাবুয়ের গ্রেট ব্যাটসম্যান গ্রান্ট ফ্লাওয়ার এবং শ্রীলংকার অন্যতম সেরা মিডল অর্ডার হাসান তিলকারত্নেকে পরামর্শক ব্যাটিং কোচ হিসেবে অফার দিয়েছে বিসিবি।

আসন্ন ত্রিদেশীয় ওয়ানডে ট’র্নামেন্ট এবং শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট ও টি-২০ সিরিজের আগে হেড পছন্দের কাউকে কোচ পাওয়া যাচ্ছে না বলে ভেবে চিন্তে হেড কোচ নিয়োগ দিতে চায় বিসিবি। এমনটাই জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি- ‘বাংলাদেশের ক্রিকেট এখন এমন একটা পর্যায়ে গেছে যে ভেবে চিন্তে কোচ আনতে হবে। যেন-তেন কোচ আনলে হবে না। আগের চেয়ে এখন কোচ নেওয়া কঠিন, কারণ আগে দল হারের মধ্যে ছিল। হঠাৎ বড় ধরনের পরিবর্তন আনলে দলের ওপর বাজে প্রভাব পড়তে পারে। আমরা তাই ভেবে-চিন্তে কোচ নিয়োগের চেষ্টা করছি। হেড কোচের বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত  সিদ্ধান্ত হয়নি। কয়েকজনের সঙ্গে কথাবার্তা চলছে, আজকেও কোচ হতে আগ্রহীদের মেইল পেয়েছি আমরা। ত্রিদেশীয় আর শ্রীলঙ্কা সিরিজে আমরাই চালিয়ে নেবো। আমরা অবশ্য একজন টপ ক্লাস ব্যাটিং পরামর্শক নেওয়ার চেষ্টা করছি, তবে তার নাম বলা যাবে না।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here