রংপুর সিটি করপোরেশনের (রসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনীত প্রার্থীর ভরাডুবিতে দুই দলের জনপ্রিয়তা তলানিতে প্রমাণিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ও যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

শুক্রবার রাজধানীর পল্টনে বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ জনদল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘রসিক নির্বাচনে বড় দুই দলের প্রার্থীদেরকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছেন জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী। এ থেকে প্রমাণিত দুই দলের জনপ্রিয়তা তলানিতে।’

‘গত নির্বাচনে যে প্রার্থী সরকার দলীয় প্রার্থীর কাছে হেরেছিল সেই প্রার্থী এবার লক্ষাধিক বেশি ভোটের ব্যবধানে জিতেছে। এতে বুঝা যায় সরকারি দল ভোটের কারসাজিতেও উস্তাদ।’

তিনি বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি, শিক্ষা ব্যবস্থায় নকলের ছড়াছড়িসহ সব খাতে অরাজকতা চলছে। গত কয়েকমাসে ৫৫ জন ব্যক্তি নিখোঁজ হয়েছেন, এর মধ্যে ৯নজন ফিরে এসেছেন কিন্তু কেউ কথা বলেন না। এই যদি হয় জীবনের নিরাপত্তা, এমন দেশকি আমরা চেয়েছিলাম? এখনই শেষ সময়, লাস্ট চান্স। আপনারা বুঝে নেন তারা কারা? ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে কি আপনারা লুটেরা, সন্ত্রাস, ডাকাত, দুর্নীতিবাজদের হাতে তুলে দিবেন? একবার শেষবারের মতো দেখে যেতে চাই, মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়েছে।’

এক সঙ্গে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে নবগঠিত যুক্তফ্রন্টকে নির্বাচিত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের বিজয় নিশ্চিত।

যুক্তফ্রন্টের আরেক অংশীদার নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘কাল থেকে অনুগত বিরোধী দলীয় নেতা এরশাদ বিজয় বোধ করছেন। হেরে গিয়েও বিজয় দেখছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। আর বিএনপি জাতীয় নির্বাচনে না গিয়ে যে কষ্ট পাচ্ছে, রংপুরের নির্বাচন দেখে কষ্ট থেকে কেষ্ট পাবেন বলে মনে হচ্ছে না।’

এ পর্যন্ত যারাই ক্ষমতায় গিয়েছেন তারাই জনগণের সঙ্গে রসিকতা করেছেন মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন এমন একটা রাষ্ট্র, যা জনগণের না। যারাই সরকার গঠন করে তারাই নিজেদের আখের গোছাতে ব্যস্ত। ওরা চেতনার সঙ্গে ব্যবসা করে আর আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে তাদের সঙ্গে লড়াই করব।’

তাই আগামীতে এক-দুই বাদ দিয়ে তৃতীয় শক্তিকে ক্ষমতায় আনতে যুক্তফ্রন্টকে নির্বাচিত করার আহ্বান জানান তিনি।

এ সময় আরো বক্তব্য দেন আয়োজক দলের সভাপতি এস এম শাহজাহান, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার প্রমুখ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here