ইয়েমেন যুদ্ধে এ পর্যন্ত সৌদি আরবের ৩৭টি এয়ারক্র্যাফট এবং ১,২০০ ট্যাংক ও সাঁজোয়াযান ধ্বংস হয়েছে। ইয়েমেনের জনপ্রিয় হুথি আনসারুল্লাহ যোদ্ধা ও তাদের সমর্থক সেনাদের হাতে সৌদি আরব ও কথিত আরব জোটের এসব বিমান এবং ট্যাংক ও সাঁজোয়াযান ধ্বংস হয়েছে।

ইয়েমেনের হুথি যোদ্ধাদের অনুগত সেনাবাহিনী রোববার এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। ইয়েমেনের আল-মাসিরা টেলিভিশন চ্যানেল এ খবর দিয়েছে। ২০১৫ সালের ২৬ মার্চ থেকে সৌদি আরব ইয়েমেনের ওপর বর্বর সামরিক আগ্রাসন চালিয়ে আসছে।

ইয়েমেনি সেনাবাহিনীর বিবৃতিতে বলা হয়েছে-সৌদি আরব ও তার আঞ্চলিক মিত্রদের অন্তত এক ডজন এএইচ-৬৪ অ্যাপাচি অ্যাটাক হেলিকপ্টার ধ্বংস করা হয়েছে। সেইসঙ্গে পাঁচটি ম্যাডোনেল ডুগলাস এফ-১৫ ঈগল ও জেনারেল ডায়নামিক্স এফ-১৬ ফ্যালকন যুদ্ধবিমান এবং ২০টির বেশি ড্রোন ধ্বংস করা হয়েছে।

এসব এয়ারক্র্যাফটের পাশাপাশি ইয়েমেনের যোদ্ধারা ১০টি যুদ্ধজাহাজ, ফ্রিগেট ও বেশ কয়েকটি গানবোট ধ্বংস করেছে। এছাড়া, সৌদি আরবের জিজান, নাজরান ও আসির প্রদেশে কয়েকশ কমান্ড সেন্টার এবং সীমান্ত ছাউনি ধ্বংস হয়েছে। এসব সামরিক সরঞ্জামের পাশাপাশি ইয়েমেন যুদ্ধে সৌদি আরবের বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচ হয়েছে যার ফলে দেশটিতে বহু আগেই বাজেট ঘাটতি দেখা দিয়েছে।এর প্রভাব পড়েছে দেশটির বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের ওপরও। সৌদি আরবের রিজার্ভ ৭৩৭ বিলিয়ন ডলার থেকে নেমে ৪৩৭ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here