জাতপাত নিয়ে কথা বলায় মামলা দায়েরের পর ক্ষমা চেয়েছেন বলিউডের সুইটকন্যা বলিউড সুপারস্টার শিল্পা শেঠি। এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বলিউডের ওই অভিনেত্রী ‘ভাঙ্গি’ শব্দটি ব্যবহারের পরই তাঁর বিরুদ্ধে ধর্মীয় ও গোত্রীয় শ্রেণীভেদে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।

এদিকে ভাঙ্গি কাণ্ডে ফেঁসে গেছেন বলিউড সুপারস্টার ও তেরেনাম খ্যাত সালমান খানও। ওই মামলায় তাকেও আসামি করা হয়েছে।

এক টুইটবার্তায় শিল্পা শেঠি বলেন, ওই সাক্ষাৎকারে দেওয়া আমার বক্তব্য ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হচ্ছে। কোনোভাবেই অন্য কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার উদ্দেশে আমি কোনো মন্তব্য করিনি। তবে, আমার বক্তব্যের কারণে তারা যদি আহত হন, তাহলে আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, আমি বিভিন্ন জাতির ভূখণ্ড ভারতের একজন নাগরিক হতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করছি। ভারত প্রতিটি ধর্মের, প্রতিটি গোত্রের সুরক্ষার জন্য কাজ করছে। একইসঙ্গে প্রতিটি ধর্ম-গোত্রকে ‘প্রমোট’ করার চেষ্টা করছে।

এর আগে গত শনিবার আন্ধেরি পুলিশ স্টেশনে রোজগার আঘারি রিপাবলিকান পার্টির সাধারণ সম্পাদক নাভিন রামচন্দ্র লাডে বাদি হয়ে সালমান খান ও শিল্পা শেঠির বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার অভিযোগ এনে একটি মামলা করেন।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সালমান খান ও শিল্পা শেঠির মন্তব্য আমাদেরকে নিচু জাত হিসেবে উপস্থাপন করছে। আমরা ইতোমধ্যে একটি অভিযোগ করেছি। ভারতের আইনে কোনো গোত্র বা ধর্মকে হেয় প্রতিপন্য করলে কোনো মানুষের ৫ বছরের কারাদন্ড হতে পারে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার লাডের আইনজীবী এক বিবৃতিতে বলেন, সালমান ও ক্যাটরিনা কাইফের এক যৌথ টিভি শোতে তারা ভাঙ্গি শব্দটি ব্যবহার করেছেন, যা হিন্দুদের একটি জাতিকে অপমমাণ করার জন্যই তারা তা ব্যবহার করেছেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here