আগামী ২০৩২ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বিশ্বের ৩১তম অর্থনীতির দেশ হবে বলে পূর্বাভাস পাওয়া গেছে দ্যা ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক লীগের এক প্রতিবেদনে।

মঙ্গলবার প্রকাশিত সেন্টার ফর ইকোনোমিকস এন্ড বিজনেস রিসার্স এন্ড গ্লোবাল কন্সট্রাকসন পার্সপেক্টিভের করা  দ্যা ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক লীগ টেবিল-২০১৮ শীর্ষক এ সমীক্ষা প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী ২০১৮ সালের মধ্যেই ব্রিটেন ও ফ্রান্সকে টপকে ৫ম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হবে ভারত। ওই সময়ের মধ্যে ফ্রান্স থাকবে ৬ নম্বরে আর ব্রিটেন থাকবে ৭ম অবস্থানে। তবে ২০২০ সালের মধ্যে ফ্রান্সকে টপকে ৬ষ্ঠ স্থান দখল করবে ব্রিটেন। তবে ২০২৮ সালের মধ্যে ব্রিটেন ও ফ্রান্সকে টপকে ৬ নম্বর অর্থনীতির দেশ হবে ব্রাজিল।

২০৩০ সালের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রকে পেছনে ফেলে ডলারের মানদণ্ডে শীর্ষ অর্থনীতির দেশ হবে চীন। আর ২০৩২ সালের মধ্যে বিশ্বের শীর্ষ চারটি অর্থনীতির দেশের মধ্যে তিনটিই থাকবে এশিয়ার।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শীর্ষ চারে চীন ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, ভারত ও জাপানও থাকবে এই সময়ের মধ্যে। এছাড়া কোরিয়া ও ইন্দোনেশিয়া প্রবেশ করবে শীর্ষ ১০ এর তালিকায়। এছাড়া তাইওয়ান, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন ও পাকিস্তান প্রবেশ করবে ২৫ এ প্রবেশ করবে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে ১১তম অর্থনীতির দেশ রাশিয়া ২০৩২ সালে যাবে ১৭ নম্বরে। আর ইতালি ২০২৩ সালের মধ্যেই শীর্ষ ১০ থেকে বিদায় নেবে। আর ২০২৯ সালের মধ্যে দেশটি যাবে ১৩তম অবস্থানে।

এছাড়া অস্ট্রেলিয়া ২০১৭ সালে ১৩তম থাকলেও ২০২৬ সালে দেশটি হবে বিশ্বের ১১তম বৃহত্তর অর্থনীতির দেশ।

সেন্টার ফর ইকোনোমিকস এন্ড বিজনেস রিসার্স এন্ড গ্লোবাল কন্সট্রাকসন পার্সপেক্টিভ মোট ১৮০টি দেশের অর্থনীতির বর্তমান গতি ও সেই দেশের অর্থনীতির কয়েকটি চলকের সাপেক্ষে এই তালিকা করেছে।

ভোগ্যপণ্যসহ, জ্বালানির চাহিদা ও দাম এই পূর্বাভাসে ভূমিকা রাখবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here