লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন। নিহত শফিকুল ইসলাম(২৩) ওই এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে।

আজ শনিবার ভোর ৫টার দিকে হাতীবান্ধার দৈখাওয়া আমঝোল সীমান্তের ৯০৫ নম্বর মেইন পিলারের ২ নম্বর সাব পিলারের কাছে নোম্যান্স ল্যান্ডে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, শনিবার ভোরে শফিকুল ইসলামসহ কয়েকজন বাংলাদেশি যুবক গরু আনতে ভারতে অনুপ্রবেশের সময় কোচবিহার-১০০ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের পাগলিবাড়ি ক্যাম্পের সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে চার রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে শফিকুলের মৃত্যু হয়। এ সময় অন্যরা পালিয়ে আসে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) লালমনিরহাট ১৫ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লেফটেনেন্ট কর্নেল গোলাম মোর্শেদ জানান, এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে পতাকা বৈঠকের আহ্বান জানিয়ে ইতোমধ্যে বিএসএফকে চিঠি দেয়া হয়েছে।

দৈখাওয়া বিওপি ক্যাম্পের কমান্ডার শংকর চন্দ্র দে বলেন, “বাংলাদেশি শফিকুল জুয়া খেলার কথা বলে রাতে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। তাকে এখন আর পাওয়া যাচ্ছে না। ভোরে সীমান্তে গুলির শব্দ পাওয়া গেছে। একটি লাশও সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়ার পাশে পড়ে ছিল। তবে সকাল ৯টার দিকে লাশটি সীমান্ত থেকে ভারতের আড়াই গজ ভেতরে নিয়ে গেছে বিএসএফ। লাশটি বাংলাদেশি শফিকুলের কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”

এর আগে চলতি মাসের ১০ তারিখ রাত পৌনে ১টার দিকে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে দুই বাংলাদেশি যুবক নিহত হন। উপজেলার চর আষাড়াদহ ইউনিয়নের চর ভুবনপাড়া সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।

এছাড়া, নভেম্বর মাসের ২৮ তারিখে দিনাজপুরের সদর উপজেলার বড়গ্রাম সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে মোজাফফর হোসেন (৩৫) নামে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। একই মাসের ১৫ তারিখে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে ফরিদ হোসেন শরীফ (২২)  নামে অপর এক বাংলাদেশি তরুণ নিহত হন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here