অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘দুর্নীতি নিয়ে আমরা খুবই চিন্তিত। দুর্নীতি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা খুব জোরেশোরে চলে। দুর্নীতি বন্ধে দুদক, আদালত বানানো হয়েছে। কিন্তু তাতে খুব একটা ফল পাওয়া যাচ্ছে, তা বলা যেতে পারে না।’

শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রবাসী বাংলাদেশি দিবসের অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। স্কলার্স বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন প্রথমবারের মতো প্রবাসী বাংলাদেশি দিবস পালন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি বন্ধে তথ্যপ্রযুক্তির (আইসিটি) চেয়ে বড় হাতিয়ার আর নেই। সরকারের পেমেন্ট-রিসিভ সিস্টেমে ব্যাপকভাবে আইসিটি ব্যবহার হচ্ছে। অর্থমন্ত্রী এ সময় দুর্নীতি বন্ধে আইসিটির গুরুত্ব বোঝাতে সিলেটের মদন মোহন কলেজের একটি অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন।

মুহিত বলেন, ‘কয়েক বছর আগেও মদন মোহন কলেজের টাকাপয়সার খুব অভাব থাকত। সবচেয়ে বেশি যে আয় হতো ছাত্র ভর্তি করে, সেখান থেকে কলেজ কর্তৃপক্ষ সামান্য টাকা পেত। কারণ, বেশির ভাগ টাকা বড় ভাইয়েরা নিয়ে যেত। একজন ছাত্র ভর্তিতে ১০০ টাকা খরচ হয়েছে, তার ২০ টাকা কলেজ পেত আর ৮০ টাকা বড় ভাইয়েরা নিয়ে যেত। সেই কলেজের আয় ছিল ৮ লাখ টাকা। ভর্তি অনলাইন করায় কলেজের আয় বেড়ে ৮০ লাখ টাকা হয়ে গেছে।’

দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে এবং দেশের উন্নয়নে প্রবাসী বাংলাদেশিরা কাজ করছেন। তাঁদের এই অবদানের স্বীকৃতি দিতে প্রথমবারের মতো প্রবাসী বাংলাদেশি দিবস পালন করা হচ্ছে। প্রবাসী বাংলাদেশিদের অবদান বিবেচনায় সরকারের প্রতি দিবসটি রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন করার দাবি জানিয়েছে আয়োজকেরা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here