বিএনপি ছাড়া অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হয় কি করে? এটা আমরা আগেও বলেছি, এখনো বলছি- বিএনপি ছাড়া অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হবে না।

বললেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনে শুক্রবার দুপুরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

এর আগে বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদের পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছে আওয়ামী লীগ।

আজ শুক্রবার আগার গাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবন থেকে তার পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন আওয়ামী লীগ নেতা ও সংসদে সরকার দলীয় চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ। সকালে তার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ প্রতিনিধি দল নির্বাচন ভবনে আসেন।

এসময় সাংবাদিকদের ফিরোজ বলেন, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দেশ ও জনগণের জন্য কাজ করছেন। এজন্য আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে তাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

গেলো বুধবার রাতে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের বৈঠকে রাষ্ট্রপতি পদে আবদুল হামিদকে প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়। গণভবনে দলীয় প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ বৈঠক হয়।

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোট হবে কি না, জানতে চাইলে সিইসি বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি পদে মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষ তারিখ ৫ জানুয়ারি। আমরা জানি না আর কেউ মনোনয়ন পত্র জমা দেবে কি না।’

‘মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার জন্য তো প্রস্তাবক হিসেবে এমপিদের স্বাক্ষর লাগে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়া পরে সাত তারিখ আমরা যাচাইবাছাই করব এরপর একক প্রার্থী থাকলে আমরা বিজয়ী ঘোষণা করব।’

আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোটের দিন নির্ধারিত আছে। ১৯৯১ সালের পর অবশ্য কোনো কখনও রাষ্ট্রপতি পদে ভোট করতে হয়নি। একজন মাত্র প্রার্থী থাকায় ক্ষমতাসীন দলের মনোনীতরা নির্বাচিত হয়ে এসেছেন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়।

সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোটার হলেন সংসদ সদস্যরা। আর সংসদে ক্ষমতাসীন দলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলে অন্য কারও নির্বাচিত হওয়ার সুযোগ নেই। এবারও আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য কোনো দলের প্রার্থী দেয়ার আগ্রহ নেই।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here