কোপা দেল রের সর্বাধিক ২৯ বারের চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা ৩০ বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথে সেমির প্রথম লেগে ক্যাম্প ন্যুতে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে সুয়ারেজের গোলে কষ্টার্জিত জয় পেয়েছে।

দ্বিতীয় লেগে ভ্যালেন্সিয়ার মাঠে ‘ড্র’ করলেই ফাইনালে চলে যাবে বার্সা। দ্বিতীয় লেগ হবে ৮ ফেব্রুয়ারি।

বৃহস্পতিবার নিজেদের মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে ভ্যালেন্সিয়াকে আতিথেয়তা দেয় বার্সা। বরাবরের মতো প্রতিপক্ষ ভ্যালেন্সিয়াকে পেলেও খুব বেশি ছন্দে পাওয়া যায়নি সর্বাধিক চ্যাম্পিয়নদের। এ নিয়ে পাঁচ বছর ধরে কোপা দেল রেতে ঘরের মাঠে অপরাজিত থাকলো বার্সেলোনা। সবশেষ ২০১৩ সালে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে ঘরের মাঠে হেরেছিল কাতালানরা।

নিজেদের মাঠে শুরু থেকেই ভ্যালেন্সিয়ার উপর প্রভাব বিস্তার করে খেললেও গোলের দেখা পাচ্ছিল না বার্সা। প্রথমার্ধে একের পর এক আক্রমণ শানিয়েও জালের নাগাল পায়নি। সমর্থকদের সামনে বার্সেলোনার প্রথমার্ধের পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক।

প্রায় ৮০ শতাংশ সময় নিজেদের পায়ে বল রাখা দলটি নয়টি কর্নার আদায় করে নেয়। কিন্তু বিরতির আগে নিশ্চিত কোনো সুযোগই তৈরি করতে পারেনি তারা। তাই গোলশূন্যভাবেই শেষ হয় প্রথমার্ধের খেলা।

দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে মেসির ট্রেডমার্ক শট পাশের জালে লাগলে আবারও হতাশ হতে হয় স্বাগতিকদের। চার মিনিট পর দানিয়েল পারেহোর ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেয়া শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান বার্সেলোনা গোলরক্ষক ইয়াসপের সিলেসেন। অবশেষে কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায় বার্সেলোনা।

ম্যাচের ৬৭ মিনিটে বাঁ-দিক থেকে মেসির ক্রস ছয় গজ বক্সের মুখে পেয়ে সুয়ারেজের করা দুর্দান্ত হেড ভ্যালেন্সিয়ার এক ডিফেন্ডারের মাথা ছুঁয়ে জালে জড়ায়। পাঁচ মিনিট পর সিলেসেনকে অপ্রস্তুত দেখে প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে শট নেন ফরাসি মিডফিল্ডার কোকেলিন। বল একটুর জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে বেঁচে যায় বার্সেলোনা।

এর কিছুক্ষণ পর মেসির একটি ফ্রি-কিক ক্রসবারের উপর দিয়ে উড়ে যায়। ৭৯তম মিনিটে পাকো আলকাসেরের বিদ্যুৎ গতির শট শেষ মুহূর্তে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান ভ্যালেন্সিয়া গোলরক্ষক। শেষ দিকে প্রতি-আক্রমণে সুয়ারেস আরেকটি সুযোগ নষ্ট করলে ব্যবধান আর বাড়েনি।

বুধবার শেষ চারের অপর লড়াইয়ের প্রথম লেগে লেগানেসের মাঠে ১-১ ড্র করেছে সেভিয়া।

কোপার শেষ চারটি ফাইনালে খেলেছে বার্সেলোনা। তার মধ্যে চ্যাম্পিয়ন তিনটিতে। অন্যদিকে ভ্যালেন্সিয়া ২০০৮ সালের পর থেকে ফাইনাল খেলতে পারেনি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here