বিশ্ব ক্যানসার দিবস আজ। মরণব্যাধি ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী ৮০ লাখেরও বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করে, যার অর্ধেকেরই মৃত্যু হয় অপরিণত বয়সে। বাংলাদেশেও এ রোগের চিত্র আশঙ্কাজনক।

এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ‘উই ক্যান, আই ক্যান’ অর্থাৎ আমরা পারি, আমি পারি। সরকারি-বেসরকারিভাবে সারাদেশে দিবসটি পালিত হচ্ছে।

বাংলাদেশে প্রতি বছর ১ লাখ ২২ হাজার মানুষ ক্যানসারে আক্রান্ত হচ্ছে। আর এর মধ্যে মারা যায় ৯১ হাজার। এ অবস্থায় ক্যানসার বিষয়ে মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি, ক্যান্সার নির্ণয় ও চিকিৎসায় সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন। শনিবার রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব তথ্য তুলে ধরেন বক্তারা।

সংবাদ সম্মেলনে নাট্যকার চয়নিকা চৌধুরী বলেন, ক্যান্সার একটি কঠিন অসুখ। এর ব্যয় অনেক বেশি। তাই ক্যান্সার চিকিৎসায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

ইউনাইটেড হসপিটালের চিফ কমিউনিকেশন ও বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ডা. শাগুফা আনোয়ার শুরুতেই ক্যান্সার শনাক্তেরওপর জোর দেন। তিনি বলেন, ক্যানসার সচেতনতার বিষয়টি সামাজিক আন্দোলনে পরিণত করতে না পারলে আমাদের মতো গরিব দেশে ক্যানসার মোকাবেলা করা সহজ হবে না। ক্যানসার রোগী ও তাদের স্বজনরা একা নয়, তারা যেকোনো প্রশ্ন, দ্বিধা যাতে প্রকাশ করতে পারে সেজন্য ইউনাইটেড হসপিটাল ‘আশার ঠিকানা’ নামের একটি ব্লগ চালু করেছে। এই ব্লগ হবে ক্যান্সার রোগী ও তাদের স্বজনদের তথ্য সহায়তা ও সাহস জোগানোর একটি প্লাটফর্ম।

ক্যান্সার দিবসকে কেন্দ্র করে গত কয়েক দিনে রাজধানীর বেশ কয়েকটি সভা-সমাবেশ হয়েছে। সরকারিভাবে আগামীকাল সোমবার জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালে অনুষ্ঠান হবে। প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক মোয়াররফ হোসেন জানান, দেশে বর্তমানে ৯টি সরকারি প্রতিষ্ঠানে ও ১১টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ক্যান্সারের চিকিৎসা দেওয়া হয়। তবে বিশ্ব স্বাস্থ সংস্থার মানদণ্ড অনুযায়ী বাংলাদেশে ১৬০ প্রতিষ্ঠান থাকা দরকার বলে জানান তিনি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here