প্রথমে বিরাট কোহলির দেড়শ পেরোনো ইনিংস, পরে জুযবেন্দ্র চাহাল ও কুলদীপ যাদবের স্পিনভেল্কি; তাতে রান চাপা পড়ার পর প্রোটিয়াদের গুটিয়ে যাওয়া। আর ছয় ম্যাচের লড়াইয়ে টানা তৃতীয় জয়ে সিরিজ না হারা নিশ্চিত ভারতের। সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে কোহলিদের বুধবারের জয়টি ১২৪ রানের।

কোহলি সিরিজের প্রথম দুম্যাচে করেছিলেন ১১২ ও অপরাজিত ৪৬। তৃতীয় ওয়ানডেতে আরও ধারাল তার ব্যাট, খেলেছেন অপরাজিত ১৬০ রানের ইনিংস। টেস্ট সিরিজে ২-১এ হারা সেই ভারতই এখন পাগলাঘোড়ার গতিতে ছুটছে!

কেপ টাউনে এদিন টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করার সুযোগ পায় ভারত। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩০৩ রান করে তারা। শূন্য রানে রোহিত শর্মার আউটের পর শিখর ধাওয়ানকে সঙ্গে নিয়ে ভয়ংকর হয়ে ওঠেন কোহলি। দলীয় ৩০৩ রানের স্কোরে ভারত অধিনায়ক একাই করেন ১৬০ রান। এটি ছিল তার ক্যারিয়ারের ৩৪তম সেঞ্চুরি। দলের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন বাঁহাতি ওপেনার শিখর ধাওয়ান। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে সর্বোচ্চ দুই উইকেট নেন জেপি ডুমিনি।

৩০৪ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে  দক্ষিণ আফ্রিকা। ওপেনার হাসিম আমলা মাত্র ১ রানেই জাসপ্রিত বোমরাহর বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে সাজঘরে ফেরেন। চাহেল এবং কুলদীপের বোলিংয়ের সামনে দাড়াতেই পারেননি প্রেটিয়ারা। ৪০ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ভারতের কাছে বিশাল ব্যবধানে হেরে যায় তারা। প্রোটিয়াদের হয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন ডুমিনি এবং অধিনায়ক মার্করাম করেন ৩২ রান। ভারতের হয়ে চাহেল এবং কুলদীপ নেন ৪টি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ভারত: ৩০৩/৬ (৫০ ওভার)

(রোহিত ০, ধাওয়ান ৭৬, কোহলি ১৬০*, রাহানে ১১, পান্ডিয়া ১৪, ধোনি ১০, কেদার ১, ভুবনেশ্বর ১৬*;  জেপি ডুমিনি ২/৬০)

দক্ষিণ আফ্রিকা:  ১৭৯/১০ (৪০ ওভার)

(আমলা ১, মারক্রাম ৩২, ডুমিনি ৫১, ক্লাসেন ৬, মিলার ২৫, ঝন্ডো ১৭, মরিস ১৪, ফেলুকওয়ায়ো ৩, রাবাদা ১২*, তাহির ৮, নগিডি ৬;  চেহেল ৪/৪৬, কুলদীপ ৪/২৩ ,বুমরাহ ২/৩২,)

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: বিরাট কোহলি

ফল: ভারত ১২৪ রানে জয়ী

 

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here