অসহায় প্রাণীটির চার পা টেপ দিয়ে বাঁধা। করুণ শুকনো মুখে তাকিয়ে আছে প্লাস্টিকের ওপার থেকে। এক ঝলক দেখলে মনে হবে খেলনা। কিন্তু না। এটি আসল বাঘের বাচ্চা। কুরিয়ারে পাচার হওয়ার পথে গত বুধবার ধরা পড়েছে সে। এ সময় মেক্সিকোর জালিসকো শহরের নিউ ত্লাকপাক সেন্ট্রাল বাস স্টেশনে হৈচৈ পড়ে যায়।

কুরিয়ার মারফত বিমানে পাঠাতে পোস্টাল ডিপার্টমেন্ট বেশ কিছু প্যাকেট রেখেছে। আগের সব পরীক্ষায় উতরে গেছে ওই নীল প্লাস্টিক কন্টেইনার। কিন্তু কোনো মতেই প্যাকেটটি ছাড়তে চাইছে না স্নিফার ডগ। কন্টেনার ঘিরে চিৎকার করতে থাকে স্নিফার ডগটি। তার গন্ধবিচারকে গুরুত্ব দিয়ে ডাককর্মীরা প্যাকেটটি খুলতেই হতবাক হলেন সবাই। পশ্চিম মেক্সিকোর জালিসকো থেকে মধ্য মেক্সিকোর কোয়ারেতেরো শহরে ওই কন্টেনারে করে পাঠানো হচ্ছিল আস্ত একটি বাঘের ছানা।

ছানাটির সর্বাঙ্গ টেপ দিয়ে আটকানো। কন্টেনারের ছোট ছোট ছিদ্র দিয়ে বাতাস প্রবেশ করায় কোনওমতে শ্বাস প্রশ্বাস চলেছে। কিন্তু পানির অভাবে শাবকটির ডিহাইড্রেশন হয়ে গেছে। এখন স্থানীয় বন্যপ্রাণী উদ্ধার কেন্দ্রে ব্যাঘ্রশাবকের পরিচর্যা চলছে। পাশাপাশি কে বা কারা কেন এই দুষ্কর্ম করেছে তার তদন্ত করা হচ্ছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here